স্টাফ রিপোর্টার, সিউড়ি: কবি শঙ্খ ঘোষের পর এবার সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়৷ লোকসভার প্রাক্তন অধ্যক্ষর বিরুদ্ধে এবার তোপ দাগলেন বীরভূমে তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল৷ বৃহস্পতিবার বীরভূমের সিউড়িতে দলের জেলা কার্যালয়ে বসে অনুব্রত মণ্ডল সোমনাথবাবুর লজ্জা থাকা উচিত বলে জানিয়ে দিলেন৷

প্রসঙ্গত, কয়েকদিন আগে অনুব্রত মণ্ডলের তোপের মুখে পড়েছিলেন কবি শঙ্খ ঘোষ৷ তিনি সম্প্রতি ‘রাস্তায় দাঁড়ানো উন্নয়নকে’ কটাক্ষ করে কবিতা লিখেছিলেন৷ আর তারই উত্তরে অনুব্রত প্রশ্ন তুলেছিলেন, ‘‘এ কোন কবি?’’ রবীন্দ্রনাথ ও নজরুল ছাড়া তিনি আর কোনও কবিকে চেনেন না বলেও জানিয়েছিলেন রাজ্য রাজনীতির কেষ্ট৷

আরও পড়ুন: LIVE UPDATE রাজ্যজুড়ে সবুজ-ঝড়েও পদ্ম-কাঁটায় বিদ্ধ মমতার দল

তার পরই সমালোচনার ঝড় ওঠে রাজ্যের সব মহলে৷ অনেকেই এই ইস্যুতে শঙ্খ ঘোষের পাশে দাঁড়ান৷ সেই তালিকায় ছিলেন লোকসভার প্রাক্তন অধ্যক্ষ সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়ও৷ একই সঙ্গে তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের সমালোচনা করেছেন৷ পঞ্চায়েত নির্বাচনে হিংসা-রক্তপাতের বিরোধিতায় সরব হয়েছিলেন৷

এদিন সোমনাথবাবুর সেই অবস্থানের সমালোচনা করলেন অনুব্রত মণ্ডল৷ যদিও তিনি একবারও সোমনাথবাবুর নাম মুখে আনেননি৷ শুধু জানিয়েছেন যাঁর উদ্দেশ্যে তিনি বলছেন তিনি প্রাক্তন সাংসদ৷ ফলে আক্রমণের লক্ষ্য যে সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়, তা বুঝে নিতে সমস্যা হয়নি কারও৷

আরও পড়ুন: ‘বিজেপিকে গালি দেওয়ার জন্য দুধকুমারকে জিতিয়েছি’

অনুব্রত মণ্ডল এদিন সোমনাথবাবুর উদ্দেশ্যে নানুনের ঘটনার কথা স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন৷ সেখানে কীভাবে ভোট গণনায় কারচুপি করা হত, সেই প্রসঙ্গই এদিন তুলেছেন কেষ্ট মণ্ডল৷ আর তাই তাঁর মতে, সোমনাথবাবুদের লজ্জা লাগা উচিত৷

----
--