স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ঘড়িতে বিকেল ৫টা। হঠাৎ পরিচালক অরিন্দম শিলের ট্যুইট। সেখানে এক খবরের কাগজে লেখা রয়েছে চন্দননগরে তরুণীর রহস্য মৃত্যু। পোস্ট টা দেখে ঘাবড়ে যাওয়ারই কথা। হঠাৎ সিনেমা ছেড়ে খুনের খবর নিয়ে কেন পড়লেন পরিচালক? তাহলে কি এই খুনের সঙ্গে তাঁর কোনও সম্পর্ক রয়েছে? অনেকের ভাবনা চিন্তা এটা নিয়েই।

আসলে এটিই তাঁর পরবর্তী ছবির গল্প। গোয়েন্দা ছবি নিয়ে এর আগেও বহুবার কাজ করেছেন পরিচালক অরিন্দম শীল। আবারও তাঁর হাত ধরে পর্দায় ফিরছেন ‘গোয়েন্দা শবর’। ছবিতে দেখা যাবে টলিউডের এক ঝাঁক তারকাকে।

 

অরিন্দমের নয়া ছবির নাম ‘প্রজাপতির মৃত্যু ও পুনর্জন্ম’। শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায়ের কাহিনী অবলম্বনে তৈরি হবে ছবিটি। ছবির শ্যুটিং শুরু হবে ৬ সেপ্টেম্বর থেকে। একটি খুনের কিনারা করতে চন্দননগর যাবেন গোয়েন্দা শবর। আর ঠিক তার পরেই কলকাতায় হবে বেশ কিছু খুন৷ শবর মনে করেন, কলকাতার খুনের সঙ্গে চন্দননগরের খুনের নিশ্চয় কিছু সম্পর্ক রয়েছে।

টানটান উত্তেজনা আর রহস্যের চাদরে মোড়া এই ছবিটি। তবে শুধুমাত্র চন্দননগরই নয়, খুনের কিনারা করতে  শবর এবার পাড়ি দেবেন লখনউতে। এর আগের সিরিজ অর্থাৎ ‘এবার শবর’ এবং ‘ঈগলের চোখ’ যথেষ্টই সাফল্য পেয়েছিল বক্স অফিসে। আবার ফিরছেন গোয়েন্দা শবর। এবার দেখার পালা শবর লখনউ পাড়ি দিয়ে খুনের তদন্তে সফল হন কিনা।

এই ছবির শ্যুটিংয়ে লোকেশন হিসাবে বেছে নেওয়া হয়েছে কলকাতা, চন্দননগর এবং বালি। এছাড়াও পুজোর পর ইউনিট চলে যাবে লখনউতে৷ ছবিতে নাম ভূমিকায় অভিনয় করবেন শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়, শুভ্রজিৎ দত্ত (নন্দ) এবং গৌরব চট্টোপাধ্যায় (সঞ্জীব)৷ এছাড়াও রয়েছেন ইন্দ্রনীল সেনগুপ্ত, অনিন্দ্য চট্টোপাধ্যায়, অঞ্জনা বসু, মীর। সব ঠিক থাকলে আগামী বছর জানুয়ারি মাসে শবর হাজির হবে তার দর্শকদের সামনে৷

----
--