নয়াদিল্লি: আপাত দৃষ্টিতে হয়ত মনে হচ্ছে শুধু পাকিস্তানকে সমলাতেই ব্যস্ত ভারত। কিন্তু আদতে তা নয়। চিনের সীমান্ত ৪,০৫৭ কিলোমিটার জুড়ে থাকা লাইন অফ অ্যাকচুয়ার কন্ট্রোল নিয়েও যথেষ্ট মাথাব্যাথা রয়েচে ভারতের। আর সেই চিন সীমান্তে একটু একটু করে শক্তিবৃদ্ধি করছে ভারত।

চিন সীমান্তে মোতায়েনের জন্য দ্বিতীয় ‘মাউন্টেন স্ট্রাইক কর্পস’ তৈরি করছে সেনাবাহিনী। এছাড়া এবছরের শেষে লাদাখের বরফ ঢাকা শৃঙ্গে হবে যুদ্ধ মহড়া। সূত্রে খবর, আগামী তিন বছররে মধ্যে চিন সীমান্তে সম্পূর্ণভাবে কার্যকর হবে ৭২ ইনফ্যানন্টরি দি্যিশন, যার হেডকোয়ার্টার পাঠানকোটে। প্রথমে একটি ব্রিগেড কাজ কর শুরু করবে। পরে তিনটি ব্রিগেড একসঙ্গে মোতায়েন থাকবে। ২০১৪ থেকেই চিনের বিরুদ্ধে সৈন্য সাজাতে ১৭ মাউন্টেন কর্পস গঠন করতে শুরু করে ভারত।

২০২১-এর মধ্যে তৈরি হবে এই ১৭, মাউন্টেন কর্পস। এই বাহিনীর কাছে থাকবে অস্ত্র, কামান, হেলিকপ্টার। লাদাখ থেকে অরুণাচল পর্যন্ত কাজ করবে ইঞ্জিনিয়ার ব্রিগেড। মোট ৬৪,৬৭৮ কোটি টাকা খরচে তৈরি হচ্ছে এই বাহিনী। এতে থাকবে মোট ৯০,২৭৪ সেনা জওয়ান।

চিনের পিপলস লিবারেশন আর্মির বিরুদ্ধে যে কোনও সময় যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত থাকতে ওই বাহিনীর হাতে থাকবে অগ্নি পরমাণু মিসাইল, ফাইটার জেট, ট্যাংক, ব্রহ্মোস সুপারসনিক মিসাইলের মত আধুনিক অস্ত্রশস্ত্র। নতুন ১৭ কর্পসের মধ্যে থাকবে ৫৯ ইনফ্যান্টরি ডিভিশন। যাদের পশ্চিমবঙ্গের পানাগড়ে তৈরি করা হয়েছে। এবার তৈরি হচ্ছে ৭২ ডিভিশন।

----
--