সুকনায় ৩৩ কোরের রুটিন তৎপরতা, সরগরম শিলিগুড়ি

শিলিগুড়ি:  সীমান্ত নিয়ে ভারত-চিন টেনশন যখন দুই দেশের নেতৃত্বকে ফের আলোচনার টেবিলে টেনে এনেছে, তখন চিনের পিএলএ যেমন বসে নেই ঠিক তেমনই ভারতীয় সেনাবাহিনীও যে ঘুমাচ্ছে না, শিলিগুড়ির সেনা ক্যাম্প থেকে ৩৩ কোরের তৎপরতাতে তা পরিষ্কার। যদিও ভারতের সেনাবাহিনীর এই তৎপরতার মধ্যে অতিরিক্ত কোনও প্রস্তুতির নিদর্শন মেলেনি। এমনিতেই সীমান্তে পাহারায় থাকা সেনাবাহিনীর একটি অংশ যখন ক্যাম্পে ফিরে আসে তখন ক্যাম্পে রিজার্ভ থাকা বাকি অংশ সেই শূন্যস্থান পূরণ করে। হয়তো সুকনার সেনা ক্যাম্প থেকেও ৩৩ কোরের তিনটি ডিভিশনের মধ্যে একটি এতদিন যারা সীমান্তে ছিল তাদের জায়গা নিতে যাচ্ছে, কিন্তু যেহেতু চিনের সঙ্গে সম্প্রতি সীমান্ত নিয়েই একটা টেনশন তৈরি হয়েছে তাই এই ঘটনা কিছু কিছু মহলে একটা যুদ্ধ যুদ্ধ ব্যাপারের ইঙ্গিত দিচ্ছে।

ডোকালাম সমস্যা তৈরি হয়েছে বলে নয়, সিকিম সহ উত্তর-পূর্বাঞ্চলের চিন সীমান্ত বরাবর ভারতের যে সেনাবাহিনী মোতায়েন থাকে তারা মূলত সুকনার মিলিটারি কমান্ডেরই অধীনে থাকে। ৩৩ কোরের অধীনে যে তিনটি ডিভিশন সংখ্যার দিক থেকে মিলিতভাবে তাদের শক্তি কমবেশি এক লাখের মতো। কিন্তু কখনই তিনটি ডিভিশন একসঙ্গে চলাচল করে না। সাধারণত একটি ডিভিশন যখন সীমান্তে মোতায়েন থাকে বাকি দুটি তখন রিজার্ভে থাকে। যুদ্ধ পরিস্থিতিতেও অতিরিক্ত আরেকটি ডিভিশনকে মোতায়েন করা হয়। কিন্তু তেমন অবস্থাতেও একটি ডিভিশন সবসময়েই ক্যাম্পে থাকে। কারণ যে কোনও মুহূর্তে ব্যাক-আপ ফোর্স হিসাবে তাদের দরকার হতে পারে।  দ্য কুইন্টিয়ের খবর অনুযায়ী, সুকনার ক্যাম্প থেকে একটি ডিভিশনকেই পাহাড়ের দিকে মুভ করতে দেখা গিয়েছে। তার মানে পাহাড় থেকে নেমে আসছে এতদিন সেখানে মোতায়েন ছিল যে ডিভিশন তাদের ফৌজ।

Advertisement ---
---
-----