অফিস কর্মীদের স্ট্যান্ডার্ড ডিডাকশন ফিরিয়ে দিলেন জেটলি

নয়াদিল্লি: ২০০৫ সালে উঠে গিয়ে ছিল স্ট্যান্ডার্ড ডিডাকশন৷ তারপর থেকে প্রতি বছরই বাজেটের আশায় আশায় থাকত অফিসমুখি কর্মীরা ফের তা ফিরিয়ে আনা হবে বলে৷ অবশেষে তাদের আশা পূরণ করলেন এবারের বাজেটে অরুণ জেটলি৷ তিনি এদিন ঘোষণা করেন স্যান্ডার্ড ডিডাকশন বাবদ এবার থেকে ছাড় মিলবে ৪০,০০০টাকা৷

স্ট্যান্ডার্ড ডিডাকশন তুলে দেওয়া বেতনভোগী কর্মীদের পক্ষে অশুভ ছিল৷ কারণ কেউ ব্যবসায় করলে তার নানা রকম খরচ বাদ দিয়ে তবেই হিসাব করা হয় করযোগ্য আয়৷ কিন্তু ব্যবসায়ী অথবা পেশদারদের মতো বেতনভুক কর্মচারি এই ধরনের খরচ বাবদ কোনও সুবিধা পেত না৷ সেই কথা ভেবেই অফিস কর্মীদের জন্য ফিরিয়ে আনা হল স্ট্যান্ডার্ড ডিডাকশন৷

এই স্ট্যান্ডার্ড ডিডাকশনের ফলে করযোগ্য আয়ের হিসেব করতে গিয়ে বেতনভোগীরা তাদের মোট বেতন থেকে একটা অংশ বাদ যাবে এই কাজ সংক্রান্তা তাদের নানা রকম খরচ বাবদ৷

- Advertisement -

২০০৫ সালে স্ট্যান্ডার্ড ডিডাকশন উঠে যায় তবে তখন বেতন ভোগীরা এই খাতে ছাড় পেতেন সর্বাধিক ৩০,০০০টাকা অথবা বেতনের ৪০ শতাংশ (যদি বেতন ৫ লক্ষ টাকার নিচে হত) এবং ২০,০০০টাকা ( যদি বেতন ৫ লক্ষ টাকার বেশি হত)৷.

নতুন কর্মীদের জন্য পরের তিন বছর ধরে সরকার এবার থেকে ১২ শতাংশ হারে এমপ্লয়িজ প্রভিডেন্ড ফান্ড (ইপিএফ) জমা দেবে ৷ এজন্য ইপিএফ আইনে পরিবর্তন আনা হবে বলে বাজেট ভাষণে জেটলি জানান৷ পাশাপাশি জানান, মহিলাদের ক্ষেত্রে মালিকদের দেওয়া অর্থে কোনও পরিবর্তন না করলেও মহিলাদের ইপিএফে জমা হবে ১২ শতাংশের বদলে ৮শতাংশ৷ তবে চাকরিজীবীদের জন্য আয়করে হারের ক্ষেত্রে কোনও পরিবর্তন আনা হয়নি৷

Advertisement ---
-----