হাসপাতাল থেকে ফিরেই মিটিংয়ে যোগ দিলেন অরুণ জেটলি

নয়াদিল্লি: তিন সপ্তাহ পর দিল্লির এইমস থেকে ছাড়া পেলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি৷ ছাড়া পেয়েই মন্ত্রকের কাজকর্ম কেমন চলছে জানতে জরুরি বৈঠকের ডাক দেন তিনি৷ বৈঠকে হাজির ছিলেন অর্থসচিব হাসমুখ আধিয়া, অর্থনীতি সংক্রান্ত দফতরের সচিব সুভাষ চন্দ্র গর্গ এবং মুখ্য অর্থনৈতিক উপদেষ্টা অরবিন্দ সুব্রহ্মণ্যম৷

আরও পড়ুন: বিএসএফ জওয়ান শহিদ হওয়ার পরও ভারতের দিকেই আঙুল তুলল পাকিস্তান

সংবাদসংস্থা এএনআই জানিয়েছে, জেটলির বাড়িতেই প্রায় আধ ঘণ্টা ধরে চলে বৈঠক৷ ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে অর্থমন্ত্রকের শীর্ষ কর্তারা তাতে যোগ দেন৷ হাসপাতালে ভরতি থাকাকালীন মন্ত্রকের কাজকর্ম সম্পর্কে খুব একটা ওয়াকিবহাল ছিলেন না অরুণ জেটলি৷ আধ ঘণ্টার এই বৈঠকে অর্থমন্ত্রীকে সংক্ষেপে তিন সপ্তাহে কী কী কাজ হয়েছে তার খতিয়ান দেন অর্থসচিব হাসমুখ আধিয়া৷ এছাড়া সচিব সুভাষ চন্দ্র গর্গ ও অরবিন্দ সুব্রহ্মণ্যমও অরুণ জেটলিকে রিপোর্ট দেন৷

এএনআইকে অর্থমন্ত্রকের এক শীর্ষ আধিকারিক জানান, এ দিন বিকালে ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে এই বৈঠক হয়৷ অর্থমন্ত্রী তিন সপ্তাহ হাসপাতালে ভরতি ছিলেন৷ এই সময়ে কী কী কাজ হয়েছে তার খতিয়ান অর্থমন্ত্রীকে দেওয়া হয়৷ তিনি বাড়ি ফিরে এলেও ডাক্তারের পরামর্শ মেনেই তাঁকে চলতে হবে৷ পুরোদমে মন্ত্রকের কাজে যোগ দিতে একটু সময় লাগবে৷

আরও পড়ুন: এবার আরএসএসের ইফতার বাতিল করার আবেদন মুখ্যমন্ত্রীর কাছে

৬৫ বছরের অরুণ জেটলির ১২ মে এইমস হাসাপাতালে ভরতি হন৷ তার দু’দিন পর অর্থমন্ত্রীর কিডনি ট্রান্সপ্ল্যান্ট হয়৷ কোনও ভাবে শরীরে যাতে সংক্রমণ না ছড়ায় তার জন্য আলাদা ওয়ার্ডে তাঁর থাকার জন্য উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি করা হয়৷ হাসপাতালে ভরতি থাকলেও মাঝে মধ্যেই তাঁর স্বাস্থ্যের অবস্থা নিয়ে টুইট করতেন৷ এ দিনও হাসপাতাল থেকে ছাড়া পাবার পর টুইট করে এইমসের ডাক্তার, নার্সদের ধন্যবাদ জানান৷ অরুণ জেটলি যখন হাসপাতালে ছিলেন তখন অর্থমন্ত্রকের অতিরিক্ত দায়িত্ব দেওয়া হয় রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েলকে৷

----
-----