ইটানগর: প্রতিবেশী দেশ চিনের সাংপো নদী প্রচুর পরিমাণে জল ছাড়ার কারণে অরুণাচল প্রদেশের পূর্ব সিয়াং জেলায় সতর্কতা জারি করল প্রশাসন। চিনের সাংপো নদী ভারতে সিয়াং নামে পরিচিত। এদেশে সিয়াং অন্য দুটি নদী লোহিত ও দিবাং-এর সঙ্গে সংযুক্ত হয়ে ব্রহ্মপুত্রের সঙ্গে মিলিত হয়েছে।

পূর্ব সিয়াং-এর ডেপুটি কমিশনার তামীয় তাতাক সিয়াং নদীর দুই তীরবর্তী অঞ্চলের মানুষকে সতর্ক থাকার নির্দেশ দিয়েছেন। তবে পাশাপাশি এও জানান, ‘ভয় পাওয়ার কিছু নেই’। তবে স্থানীয়দের ওই নদীতে সাঁতার কাটতে বা মাছ ধরতে যাওয়ার ক্ষেত্রেও সতর্কতা জারি করেছে প্রশাসন।

বুধবার একটি বিজ্ঞপ্তিতে বেজিং সরকার নয়াদিল্লিকে জানিয়েছে চিন উপত্যকায় প্রবল বর্ষণের জেরে সাংপো নদী ফুলে ফেঁপে উঠেছে। এবং প্রায় ৯০২০ কিউমেক জল ছাড়া হয়েছে। কেন্দ্রীয় জল কমিশন জানিয়েছে গত পঞ্চাশ বছরের মধ্যে এবছর সর্বাধিক জল ছেড়েছে সাংপো। ১৫ দিন আগে এর পরিমাণ ছিল ৮০৭০ কিউমেক।

নদীতে জলের স্রোত পরিমাপের একক হল কিউমেক বা কিউবিক। প্রতি সেকেন্ডে জলের স্রোত পরিমাপের জন্য এই একক ব্যবহার করা হয়। ৯০২০ কিউমেক জল প্রায় ৯.০২ মিলিয়ন লিটার জলের সমান। এই বিপুল পরিমাণ জল সাংপোতে প্রতি সেকেন্ডে প্রবাহিত হয়েছে।

তাতাক আরও জানিয়েছেন, ‘মানুষকে সতর্ক থাকার জন্য আমরা বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছি। কিন্তু এই মুহূর্তে ভয় পাওয়ার কোনো কারণ নেই। আমরা সর্বক্ষণ উচ্চ সিয়াং জেলার আধিকারিকদের সাথে যোগাযোগ রেখেছি। পাশাপাশি সিয়াং-এর জলস্রোতের দিকেও নজর রাখা হয়েছে’।

পাশাপাশি গত সপ্তাহে পূর্ব সিয়াং প্রশাসন সাধারণ মানুষকে সতর্ক থাকতে আরও একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে। সিয়াং-এ যাওয়ার ক্ষেত্রে নিষেধজ্ঞা জারি করা হয়েছে। প্রশাসন জানিয়েছে বিগত দু’সপ্তাহ ধরে সিয়াং-এ অস্বাভাবিক ঢেউ লক্ষ্য করা গেছে।

তাতাক আরও জানিয়েছেন,’ সিয়াং-এ এইধরনের বড় ঢেউ এর আগে দেখা যায়নি। পাশাপাশি সিয়াং বিদ্ধংসী হয়ে উঠেছে’।

বেশকিছু মাস ধরেই শিরনামে সিয়াং। হঠাতই লক্ষ্য করা যায় সিয়াং-এর স্বচ্ছ জল দূষিত হয়ে যাচ্ছে। গতবছরের অক্টোবর মাস থেকেই এই ঘটনা সামনে আসে। জানা যায়,জলে বিপুল পরিমাণে পলি ও মাটির উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে।

প্রসঙ্গত, দু’জন ভারতীয় বিজ্ঞানী সিয়াং-এর জল কালো হয়ে যাওয়ার কারণ হিসেবে তিব্বতে ঘটে যাওয়া একাধিক ভূমিকম্পকে দায়ী করেছিলেন।

----
--