আসল পরীক্ষা এশিয়ান গেমস: চানু

নয়াদিল্লি: ২০১৭ নভেম্বরে মার্কিন মুলুকে বিশ্ব ভারোত্তোলন প্রতিযোগিতায় সোনা জিতেছিলেন৷ ২২ বছরের খরা কাটিয়ে বিশ্ব ভারোত্তোলন মঞ্চে ভারতের বিজয় পতাকা তুলে ধরেছিলেন মনিপুরের মিরাবাঈ চানু৷ তাঁর সামনে এখন কমনওয়েলথ ও এশিয়ান গেমসের মত বড় দুটি ইভেন্ট রয়েছে৷ এবং এগুলোকেই আসল পরীক্ষা বলে মানছেন চানু৷

নিজের পরবর্তী লক্ষ্য সম্পর্কে চানু জানান, ‘এই বছর আমার প্রধান টার্গেট হল কমনওয়েল গেমস ও এশিয়ান গেমস’৷ তবে গোল্ড কোস্ট ও জার্কাতার ইভেন্টের মধ্যে জার্কাতাকেই এগিয়ে রাখছেন বিশ্বজয়ী ভারোত্তোলক, ‘ যদিও আমার মতে কমনওয়েলথের থেকেও এশিয়ান গেমসের লড়াইটা শক্ত৷ কারণ ওখানে চিন, থাইল্যান্ড,সাউথ কোরিয়া ও নর্থ কোরিয়ার প্লেয়াররাও অংশ নেবেন৷’

১৯৯৩ ও ১৯৪ সালে কার্ণাম মালেশ্বরীর পর ২২ বছর বিশ্ব ভারোত্তোনো সোনা পায়নি ভারত৷ মালেশ্বরী যেখানে শেষ করেছিলেন ঠিক সে জায়গা থেকে শুরু করে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আনাহিমে ৪৮ কেজি বিভাগে সোনা জিতেছিলেন মণিপুরে ২৩ বছরের চানু৷ ৮৫ কেজি স্ন্যাচের পর ১০৯ কেজি জার্ক করে মোট তিনি ১৯৪ কেজি ভারোত্তোলন করেছিলেন তিনি৷ অথচ রিও অলিম্পিকে ৪৮ কেজি বিভাগে শুরুই করতে পারেননি চানু৷

- Advertisement -

নিজের উন্নতির সমস্ত ক্রেডিট কোচ বিজয় কুমারকে দিচ্ছেন মনিপুরের গোল্ডেন গার্ল, ‘আমার কোচ বিজয় কুমারের কাছেই আমি এখন প্র্যাক্টিস করছি৷ ওনার গাইডেন্সেই ভারোত্তোলন ক্ষমতা ২৫ কেজি বাড়িয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে সাফল্য এসেছে৷ ওনার ট্রেনিং পদ্ধতি দারুনভাবে পরিকল্পিত৷’

মনিপুর থেকেই ভারতের আর এক ভারোত্তোলক সনজিতা চানুও এবারের কমনওয়েলথ গেমসে ভাগ নিচ্ছেন৷ ৫৩ কেজি বিভাগে প্রতিযোগিতা লড়বেন সনজিতা৷ তাঁর কথা উল্লেখ করে মিরা জানান, ‘দেশের মধ্যে যদি আপনার প্রতিদ্বন্দ্বী খেলোয়াড়রা ভালো পারফর্ম করেন তাহলে আপনার খেলাও স্বাভাবিকভাবে উপরে উঠবে৷’

Advertisement ---
---
-----