Breaking News- ফের তিনসুকিয়ায় জঙ্গি হামলা, গভীর জঙ্গলে প্রবল গুলির লড়াই

গুয়াহাটি: ফের তিনসুকিয়ায় আলফা (স্বাধীনতা) বিচ্ছিন্নতাবাদীদের হামলা। সন্ধের পর থেকে জনা ১৫ সশস্ত্র আলফা সদস্যের সঙ্গে নিরাপত্তারক্ষীদের প্রবল গুলি বিনিময় হচ্ছে। ঘটনাস্থল অসম ও অরুণাচল সীমান্তবর্তী ফানিং। এখানকার জঙ্গলে থাকা জঙ্গি ঘাঁটি ঘিরে সংঘর্ষ চলছে।

সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবার দুপুর থেকেই অভিযান চালানো হয়। সন্ধে নামতেই আলফা বনাম নিরাপত্তারক্ষীদের গুলির লড়াই শুরু হয়ে যায়। প্রবল ঠাণ্ডার মাঝে চলছে এই অভিযান।

পড়ুন: রাজ্যগুলির উপর নজরদারি চালাচ্ছে কেন্দ্র: মমতা

এইদিনই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদে রাজ্য সরকারকে হুঁশিয়ারি দিয়েছে আলফা (স্বাধীনতা)। সংগঠনের সুপ্রিম কমান্ডার পরেশ বড়ুয়ার হুমকি- বিল কার্যকরী হলে ভয়ঙ্কর পরিবেশ তৈরি করা হবে। তারপরেই ফের তিনসুকিয়া থেকে এল গুলির লড়াইয়ের খবর।

সম্প্রতি এই তিনসুকিয়ায় হামলা চালিয়ে ৫ বাঙালিকে খুন করা হয়। অসমে এনআরসি জারির পরেই এই হামলা হয়। ধারণা করা হয়েছে, এতে জড়িত আলফা বিচ্ছিন্নতাবাদীরা। তবে আলফা সেই দাবি অস্বীকার করেছে। বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনটির প্রধান পরেশ বড়ুয়া সরাসরি এনআরসি জারি করে অ-অসমীয়া বাংলাদেশি হিন্দুদের অসমে স্থান দেওয়ার বিরোধী। পাশাপাশি নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলেরও প্রবল বিরোধী।

পড়ুন: লোকসভার রণকৌশল ঠিক করতে দিল্লিতে জেলা বিজেপি

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলে বলা হয়েছে, ভারতের প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলি থেকে অ-মুসলিমরা এসে নাগরিকত্ব চাইলেই পেয়ে যাবেন। অসম সহ উত্তর পূর্ব ভারতের সব রাজ্যের স্থানীয় জনগোষ্ঠীর ক্ষোভ তাতে চাগাড় দিয়েছে। তাদের দাবি, এতে করে প্রতিবেশী বাংলাদেশ থেকে কাতারে কাতারে হিন্দুরা চলে আসবেন। এতে বাড়বে জাতিগত সংঘাত।

বিলটির প্রতিবাদে অসমে বিজেপি পরিচালিত সরকারের বিরুদ্ধে তাই পালিত হয়েছে বনধ। একইভাবে নাগাল্যান্ড, মনিপুর, মিজোরাম, ত্রিপুরা, মেঘালয়তেও বনধ পালন করে উপজাতি ছাত্র সংগঠনের যৌথ মঞ্চ নেসু। তারসঙ্গে বামপন্থী ও কেন্দ্রীয় ট্রেড ইউনিয়নগুলির ডাকা ১২ দফা দাবির ভিত্তিতে দুদিন ব্যাপী ভারত বনধ মিশে গিয়ে অচলাবস্থা তৈরি হয় উত্তর পূর্বাঞ্চলে। ত্রিপুরায় উপজাতি বনধ সমর্থনকারীদের উপর গুলি চালানোর ঘটনায় ক্ষোভ আরও উসকে উঠেছে। মেঘালয়ে ক্ষমতায় থাকা এনপিপি তাদের শরিক দল বিজেপির সঙ্গ ছাড়ায় হুঁশিয়ারি দিয়েছে। অসমেও সরকার ছেড়েছে অগপ।

পড়ুন: দলত্যাগী সৌমিত্র খাঁর ছবিতে মালা জড়িয়ে ‘শুদ্ধিকরণ’ তৃণমূলের

এদিকে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল বিরোধিতায় প্রবল উত্তপ্ত অসম। একাধিক বিশ্ববিদ্যালয়ের পঠন পাঠান বন্ধ। বিলের বিরোধিতায় সামিল বুদ্ধিজীবীরা। ড. হীরেন গোঁসাইয়ের মতো বুদ্ধিজীবীকে দেশদ্রোহী তকমা দিয়ে সরকার গ্রেফতার করায় পরিস্থিতি আরও জটিল হয়েছে। এই গ্রেফতারির পরেই আলফা (স্বাধীনতা) হুমকি দেয় বিজেপি পরিচালিত রাজ্য সরকারকে।

সেই হুমকির পরেই এল তিনসুকিয়া থেকে গুলির লড়াইয়ের খবর। নিরাপত্তার কারণে রাজধানী গুয়াহাটি সহ অসমের কিছু এলাকায় জারি ১৪৪ ধারা। তবে বিলের বিরোধিতা করে প্রতিবাদ মুখর হয়ে রয়েছে অসম।
তিনসুকিয়া ফানিং জঙ্গলে চলছে অভিযান।

----