একনজরে নারদ কর্তার কাছে সিবিআইয়ের প্রশ্নাবলী

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: হাইকোর্টের নির্দেশ পাওয়ার পরই নারদ কাণ্ডে প্রাথমিক তদন্ত শুরু করে সিবিআই৷ নারদ নিউজ কর্তা ম্যাথু স্যামুয়েলকে ১২টি প্রশ্ন মেল করে তদন্তকারী অফিসাররা৷ স্টিং অপারেশন করতে কত টাকা খরচ হয়েছে এবং সেই টাকার উৎস জানতে চাওয়া হয় নারদ কর্তার থেকে৷ মেলেই সমস্ত প্রশ্নের জবাব দিয়েছেন ম্যাথু৷

সিবিআই ও ম্যাথু স্যামুয়েলের প্রশ্নোত্তর…

১. প্রশ্ন- নারদ স্টিং অপারেশন করার পরিকল্পনা কবে ?
উত্তর- ২০১৩-র শেষদিকে পরিকল্পনা করি

- Advertisement -

২. প্রশ্ন- স্টিং অপারেশন কবে থেকে শুরু হয়েছিল ?
উত্তর- ২৩ মার্ড, ২০১৪ থেকে স্টিং অপারেশন শুরু করি

৩. প্রশ্ন- স্টিং অপারেশন করতে কতদিন সময় লাগে ?
উত্তর- প্রায় ৮ মাস সময় লেগেছিল

৪. প্রশ্ন- স্টিং অপারেশনে আপনি ছাড়াও কতজন ছিলেন ?
উত্তর- নারদ সংস্থার ৬-৭ জন কর্মী ছিলেন

৫. প্রশ্ন- নারদ স্টিং অপারেশন করার সময় কোথায় ছিলেন ?
উত্তর- কলকাতার বিভিন্ন হোটেল বা গেস্ট হাউসে ছিলাম, কখনও দিল্লি থেকে যাতায়াত করেছি

৬. প্রশ্ন- নারদ স্টিং অপারেশনে সাহায্য কারা করেছিল ?
উত্তর- ট্যাক্সিচালক ইসলামের মাধ্যমে টাইগার মির্জার সঙ্গে যোগাযোগ হয়, টাইগার মির্জার মাধ্যমে স্টিং-এ দেখানো অন্যান্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করি৷

৭. প্রশ্ন- স্টিং অপারেশনে ব্যবহৃত টাকার উৎস কী ?
উত্তর- তহলকা ইন্ডিয়ার টাকায় স্টিং অপারেশন করি

৮. প্রশ্ন- স্টিং অপারেশনে কী সরঞ্জাম ব্যবহার করা হয়েছিল ?
উত্তর- আই ফোন AI387-এ ভিডিও করি

৯. প্রশ্ন- স্টিং অপারেশনের ফুটেজ কোথায় সংরক্ষণ করা হয়েছিল ?
উত্তর- স্যানডিস্ক-এর 64 GB পেনড্রাইভ, স্যামসাং-এর হার্ড ডিস্ক ও ম্যাকবুক প্রো ল্যাপটপে

১০. প্রশ্ন- নারদ স্টিং ফুটেজ এডিট কোথায় বসে হয়েছিল?
উত্তর- দিল্লির নারদের অফিসে বসে এডিট হয়েছিল

১১. প্রশ্ন- নারদ স্টিং অপারেশনে ভিডিও ফুটেজ এডিটিং কারা করেন ?
উত্তর- প্রাক্তন কর্মী নিধি রামাচন্দ্রন-সহ কয়েকজন

১২. প্রশ্ন- প্রথম কোথায় আপলোড করা হয় নারদ স্টিং ফুটেজ ?
উত্তর- নারদের ওয়েবসাইটে প্রথম আপলোড হয়

রবিবার দিল্লির দ্বারকায় ম্যাথুর বাড়িতে কম্পিউটারে নারদের স্টিং অপারেশনের ফুটেজ রাখা এবং এডিট করা হয়েছিল, সেই কম্পিউটারের সিপিইউ হেফাজতে নেয় সিবিআই।

Advertisement
-----