লালবাজারের সামনেই খুনের চেষ্টা, নীরব দর্শক পুলিশ

সুভাষ বৈদ্য, কলকাতা : সন্ধ্যার ব্যস্ত কলকাতার রাস্তায় ধারালো টিন দিয়ে খুন করার চেষ্টা করা হল এক ব্যক্তিকে। পুলিশ দেখেও চুপ রইল। এলাকার মানুষের অভিযোগ এমনই। ঘটনার বহু পরে পুলিশ কোনওরকমে এসে তাদের কর্তব্য করে যায় বলে অভিযোগ উঠছে। অভিযোগ উঠছে কলকাতা পুলিশের সদর দফতরের পুলিশের কার্যকারিতা নিয়েও।

ঘটনাস্থল কলকাতা পুলিশের সদর দফতর লালবাজারের ঠিক উলটো দিকের ফুটপাথ। সেখানেই খুনের চেষ্টা করা হয় কলকাতা পুরসভার কর্মী লাল্টুকে। সন্ধ্যা সাতটা নাগাদ খোদ লালবাজারের সামনে এই ঘটনা ঘটলে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে এলাকায়।

কিভাবে ঘটনার সূত্রপাত?

- Advertisement -

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় অভিযুক্ত হেরোর কেক পাঁউরুটির দোকান থেকে বিস্কুটের কার্টুন কিনতে আসে। কার্টুন কেনার পরে পয়সা নিয়ে দুইজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। এর কিছুক্ষণের মধ্যেই পরিস্থিতি হাতাহাতির পর্যায়ে পৌঁছে যায়। এই সময় হঠাৎই হেরো তার দোকানের সামনে পড়ে থাকা টিন নিয়ে আক্রমণ করে লাল্টুর উপর। আক্রমন থেকে বাঁচতে ছুটতে শুরু করে লাল্টু। পিছু নেয় হেরো। এরপরে লালবাজারের গেটের সামনে এসে ওই ভাঙা টিন দিয়ে লালটুকে আক্রমণ করে হেরো। টিনের আঘাতে মারাত্মকভাবে জখম হয় সে।

এই গোটা ঘটনা যখন ঘটছে, এলাকায় হইচই পড়ে গিয়েছে। সমস্ত ঘটনা নিজেদের সামনে হতে দেখেও এগিয়ে আসেনি লালবাজার পুলিশ। এরপর স্থানীয়রা অভিযোগ জানালে তখন পুলিশ এসে উদ্ধার করে লাল্টু বইঠাকে। এরপরে পুলিশ ওই দোকানের মালিক দেবপ্রসাদকে আটক করে হেয়ার স্ট্রিট থানায় নিয়ে যায়। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত হেরোকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। লাল্টুকে মেডিকেল কলেজে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তার অবস্থা আশংকাজনক বলে জানা গিয়েছে। এই ঘটনায় লালবাজার পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।

Advertisement
-----