বাবরি ধংস: ‘কলঙ্কের ২৫ বছর’ জুড়ে ধর্মভিত্তিক রাজনীতির ফায়দা

ফাইল ছবি

বিশেষ প্রতিবেদন:  অযোধ্যার বাবরি মসজিদ ধংস ঘটনার আজ ২৫ তম বর্ষ৷ ধর্মনিরপেক্ষ ভারতের অন্যতম কলঙ্কজনক অধ্যায় হিসেবে দিনটিকে পালন করা হচ্ছে৷ ১৯৯২ সালের সেই বিতর্কিত ঘটনার পর রাজনৈতিক ও সামাজিক স্তরে অনেক অদল-বদল হয়েছে৷ আর মামলাটি সুপ্রিম কোর্টের অধীনে রায়ের অপেক্ষায়৷ গত পঁচিশ বছরে কেন্দ্রে কখনও ইউপিএ তো কখনও এনডিএ সরকার এসেছে৷ ‘রাম মন্দির’ তৈরির ইস্যু ছড়িয়েছে সরযূ নদীর তীর থেকে৷

এক নজরে বাবরি মসজিদ ধংস পরবর্তী ঘটনাক্রম-

  • বিজেপির চার সরকার বরখাস্ত

১৯৯২ সালের ৬ ডিসেম্বর অযোধ্যায় বাবরি মসজিদের ‘বিতর্কিত সৌধ’ ধংস করার পর দেশজুড়ে শুরু হয়েছিল তীব্র রাজনৈতিক ডামাডোল৷ কয়েকটি স্থানে ছড়িয়ে পড়ে গোষ্ঠী সংঘর্ষ৷ ঘটনার সময় কেন্দ্রে কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন তৎকালীন নরসীমা রাও সরকার চলছিল৷ আইন-শৃঙ্খলা বাজার রাখার ইস্যুতে কেন্দ্রের নির্দেশে বিজেপি পরিচালিত চার রাজ্য সরকারকে বরখাস্ত করা হয়৷ এই রাজ্যগুলি হল উত্তর প্রদেশ (মুখ্যমন্ত্রী কল্যাণ সিং), হিমাচল প্রদেশ (মুখ্যমন্ত্রী শান্তা কুমার), রাজস্থান (মুখ্যমন্ত্রী ভৈঁরো সিং শেখাওয়াত) এবং মধ্যপ্রদেশ(মুখ্যমন্ত্রী সুন্দরলাল পাটোয়া)৷ এই চার রাজ্যে জারি হয় রাষ্ট্রপতি শাসন৷ বিশেষজ্ঞদের ধারণা, কেন্দ্রের এই পদক্ষেপ আখেরে লাভবান হয়েছিল বিজেপি৷ পরে এই চার রাজ্যে আরও বিপুল শক্তি নিয়ে ফিরেছিল বিজেপি৷

  • মুম্বইয় ধারাবাহিক বিস্ফোরণ
- Advertisement -

অযোধ্যায় বাবরি মসজিদ ধংসের পর দেশের কয়েকটি স্থানে ছড়িয়েছিল গোষ্ঠী সংঘর্ষ৷ এর জেরে অনেকের মৃত্যু হয়৷ যার সবথেকে তীব্র প্রতিক্রিয়া ছিল ১৯৯৩ সালে মুম্বইয়ের ধারাবাহিক বিস্ফোরণ৷ ১২ মার্চ পরপর ১২টি স্থানে বিস্ফোরণ ঘটানো হয়৷ রক্তাক্ত হয় বাণিজ্য নগরী৷ বাবরি ধংসের বদলা নিতেই মাফিয়া ডন দাউদ ইব্রাহিমের নেতৃত্বে পরপর বিস্ফোরণ ঘটানো হয় মুম্বইতে৷ সেই নাশকতায় ২৫৭ জনের মৃত্যু ও ৭০০ জনের বেশি জখম হন৷ হামলার পর থেকে দাউদ পলাতক৷ পাকিস্তানেই আছে মোস্ট ওয়ান্টেড এই দুষ্কৃতী৷

  • কেন্দ্রে প্রথম বার বিজেপি

অযোধ্যা বাবরি মসজিদ ধংস ও রাম মন্দির নির্মাণের বিষয়টি বিজেপির পালে বিশেষ হাওয়া দিয়েছিল৷ সেই রেশ ধরেই কেন্দ্রে প্রথমবার পদ্মফুল ফোটে৷ ১৯৯৬ সালে লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি সবথেকে বৃহত্তম দল হিসেবে উঠে আসে৷ প্রধানমন্ত্রী হন অটল বিহারী বাজপেয়ী৷ তবে পূর্ণ সংখ্যাগরিষ্ঠতা না থাকায় এই সরকার মাত্র ১৩ দিন চলেছিল৷ দু’বছর পরে লোকসভা নির্বাচনে ফের বিজেপি ক্ষমতায় আসে৷ বাজপেয়ী দ্বিতীয়বার প্রধানমন্ত্রী হন৷

  • ধর্মনিরপেক্ষ দেশে হিন্দুত্ববাদী শক্তি বৃদ্ধি

বাবরি ধংসের আরও এক প্রতিক্রিয়া দেখা গিয়েছে রাজনৈতিক মহলে৷ এই বিতর্কিত ঘটনার পর থেকেই ভারতে হিন্দুত্ববাদী শক্তি বেড়েছে৷ বিজেপি হিন্দুত্ববাদী দল হিসেবে জাতীয় স্তরে বিশেষ শক্তিশালী হয়৷ আবার কিছু দল মুসলিম সংগঠনগুলির দিকে ঝুঁকে পড়ে৷ বিশেষজ্ঞদের ধারণা, বাবরি ধংসের পর থেকে দেশজুড়ে ধর্মীয় রাজনীতির প্রত্যক্ষ ফল ধরে রাখতে মরিয়া হয়ে ওঠে বিভিন্ন জাতীয় দল৷

# এই তথ্যগুলি বিভিন্ন জাতীয় স্তরের সংবাদমাধ্যম থেকে সংগৃহীত

Advertisement ---
---
-----