দৌড়ে নিজেই তৃণমূলী বিক্ষোভকারীকে ধরলেন মন্ত্রী বাবুল

কলকাতা: তিনি একজন নামী গায়ক ৷ সেইসঙ্গে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীও বটে৷ সিনেমাতেও তাঁকে অভিনয় করতে দেখা গিয়েছে৷ কিন্তু বৃহস্পতিবার প্রকাশ্য দিবালোকে বাবুল সুপ্রিয়কে অন্য রূপে দেখা গেল৷

এদিন বাবা-মাকে সঙ্গে নিয়ে জোড়াসাঁকো কেন্দ্রের আর্যকন্যা স্কুলে ভোট দিতে এসেছিলেন আসানসোলের সাংসদ ৷ কিন্তু ভোট দিয়ে বেরনোর সময়ই তাঁকে ঘিরে ধরে বিক্ষোভ দেখায় স্থানীয় কয়েকজন তৃণমূলী৷  ওইসময়  বিক্ষোভকারীদের মধ্যে একজনকে বাবুল বলেন, আপনার মুখে মদের গন্ধ ছাড়ছে৷ যেই না বাবুল ওই কথাটি বলেন, ওমনি দৌড় লাগায় লোকটি৷ কিন্তু বাবুলও ছাড়ার পাত্র নয়৷ সেও তখন দৌড়য় ওই লোকটির পিছনে পিছনে ৷ পুলিশ কিংবা কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকলেও সবাইকে পিছনে ফেলে বাবুলই ধরে ফেলে ওই লোকটিকে ৷ তুলে দেন পুলিশের হাতে৷

সম্প্রতি শ্রীমানি বাজারে এলাকায় একটি ফ্ল্যাট কিনে এবার জোড়াসাঁকো কেন্দ্রের নতুন ভোটার হয়েছেন তিনি ও তাঁর পরিবার৷ কিন্তু এলাকার অনেকের কাছেই তা অজানা৷ সেই কারণের ওই কেন্দ্রে তার ঘোরাঘুরি যে ভোট দিতে আসা তা বুঝতে পারেননি তৃণমূলের লোকেরা৷ এই অজ্ঞনতার জন্য তাকে বহিরাগত ভেবে ফেলে৷ তার উপর তিনি তো নেহাত নেতা নয় তিনি তো তারকাও বটে ফলে তাকে দেখে কিছু লোকের ভিড় সহ্য করতে পারেনি ওই তৃণমূল সমর্থকটি৷ ক্ষোভে দু’কথা বলতে গিয়ে একেবারে বুমেরাং হন ওই তৃণমূল কর্মীটি ৷

পুলিশের হাতে তুলে দেওয়ারপর একেবারে কাঁদো কাঁদো দশা ওই তৃণমূল বিক্ষোভকারীর৷ তবে সেটা সাময়িক কারণ ফের ত্রাতা হিসেবে দলীয় নেতা নেত্রীদের দেখা মিলতেই আবার স্বমহিমায় ওই বিক্ষোভকারীকে দেখা গেল৷ তখন যথারীতি না বুঝে এক তৃণমূল নেতা এই বিক্ষোভকারীকে সমর্থনে এগিয়ে এসে বাবুল সুপ্রিয়কে প্রশ্ন করেন,

তিনি এখানে কী করছেন? বাবুল তখন তাঁর ভোটার স্লিপ এবং আঙুলে কালির দাগ দেখান৷ এতকিছু বলার পরও ওই নেতাটি বাবুলের সঙ্গে  তর্কাতর্কি চালিয়ে যান ৷ এই বচসার কিছুক্ষণের মধ্যেই ঘটনাস্থলে আসেন ওই কেন্দ্রের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী স্মিতা বক্সী৷ তিনিও যথেষ্ট ক্ষোভ প্রকাশ করেন৷ পুরো ঘটনায় শুধু তৃণমূলই নয়, পুলিশের সঙ্গেও এদিন তর্কে জড়িয়ে পড়েন কেন্দ্রীয় এই মন্ত্রী৷ বাবুলের অভিযোগ, পুলিশের চোখের সামনে তাঁকে হেনস্থা করতে দেখেও পুলিশ কিছুই করেনি৷

তবে অভিযোগ-পাল্টা অভিযোগ যাই থাকুক না কেন,  দিনেদুপুরে     সাধারণ একটা লোকের পিছনে তারকা- মন্ত্রীকে দৌড়তে দেখে ভোটের গরম বাজারে বিনোদন পেয়েছেন এলাকার অনেকেই৷ তাঁদের মনে হয়েছে, দিনের ‘লাইট’-এ, বৈদ্যুতিন ‘ক্যামেরা’র সামনে ভালোই ‘অ্যাকশন’ হয়েছে৷

Advertisement
----
-----