কৌশিক চট্টোপাধ্যায়, রায়গঞ্জ: রাধিকাপুর-তেভাগা সকালের লিঙ্ক এক্সপ্রেসের বিরোধিতা করছেন বালুরঘাটের সাংসদ অর্পিতা ঘোষ। ১৫ দিনের মধ্যে রেল দফতর যদি কোনও সমাধান সূত্র বের না করতে পারে৷

তাহলে আবারও রেল অবরোধের পথে হাঁটবে বামপন্থীরা। বৃহস্পতিবার সিপিএমের জেলা কার্যালয়ে এক সাংবাদিক বৈঠকে এমনি কথা জানালেন রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী আনায়ুরুল হক।

আরও পড়ুন: এবার ঝাড়গ্রামেই ক্রেতা সুরক্ষা দফতর

তিনি জানান, বুধবার কাটিহার ডিভিশনে উত্তর সীমান্ত রেলওয়ের জেনারেল ম্যানেজার রেল সংক্রান্ত একটি বৈঠক করেছিল৷ সেই বৈঠকে কাটিহার ডিভিশনের আট সাংসদের সঙ্গে রেল পরিসেবা সংক্রান্ত আলোচনা হয়। সেখানেই তেভাগা লিংক এক্সপ্রেস চালু করার বিষয়ে তীব্র বিরোধিতা করেন বালুরঘাটের সাংসদ অর্পিতা ঘোষ।

অন্যদিকে, রায়গঞ্জের সাংসদ মহম্মদ সেলিমের প্রতিনিধি রাধিকাপুর কলকাতা তেভাগা লিঙ্ক এক্সপ্রেস কবে থেকে চালু করা হবে তা জানতে চান৷ তখন ট্রেন চালু করার বিষয়ে তীব্র বিরোধিতা করতে থাকেন বালুরঘাটের তৃণমূল সাংসদ। তার মতে একলাতে যে কোচ সহযোজন ও বিয়োজনের কথা বলা হচ্ছে তাতে ট্রেনের সময়ের সমস্যা হবে।

আরও পড়ুন: ইলামবাজারে তৃণমূল কার্যালয়ে হামলা! নাম জড়াল বিজেপির

এদিনের বৈঠকে রায়গঞ্জের সাংসদকে দেওয়া আগেকার সমস্ত লিখিত প্রতিশ্রুতি ভুলে গিয়ে জেনারেল ম্যানেজার সঞ্জীব রায় ও অর্পিতা দেবীর কথাকে মান্যতা দেয়৷ তারপরই তেভাগা লিঙ্ক চালু করা সম্ভব নয় বলে জানিয়ে দিয়েছেন।

যার ফলে আচমকাই আরও সমস্যার মুখে তেভাগা লিঙ্ক এক্সপ্রেসের ভবিষ্যৎ। এই অবস্থায় রেল দফতরকে তিনি পার্টির পক্ষ থেকে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন৷ বিগত দিনে জেলাবাসীর দীর্ঘ দিনের দাবি মেনে ট্রেনের দাবিতে পার্টির পক্ষ থেকে রেল অবরোধের কর্মসূচি নেওয়া হয়ে ছিল। ১৫ দিনের মধ্যে রেল দফতর যদি দিনের ট্রেনের বিষয়ে সবুজ সংকেত না দিতে পারে তাহলে আগামী দিনে ডালখোলা স্টেশনকে স্তব্ধ করে দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন: বিজেপি বিধায়কের বাড়ির সামনে গ্রেনেড হামলা

--
----
--