ফাইল চিত্র৷

স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: এবার ২০ চাকার লরি চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারি রাজ্য সরকারের৷ যার জেরে ব্যাপক ভাবে সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়েছে জেলার আমদানি রপ্তানীকারকদের৷ এই নিষেধাজ্ঞা মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে মালদহ জেলার ব্যবসায়ীদের কাছে৷

এর জেরে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত সড়ক বাণিজ্য কেন্দ্র মহিদীপুর এক্সপোর্ট জোন আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারে বলে আশঙ্কা। জেলা জুড়ে ব্যবসার যাবতীয় সামগ্রী আসত বড় লরির সাহায্যেই৷ তার বেশির ভাগই ২০ চাকার৷ তবে এই নিষেধাজ্ঞা জারির পর মাথায় হাত পড়েছে ব্যবসায়ীদের৷

আরও পড়ুন: বৈচিত্রের মধ্যে ঐক্য নয়, অনৈক্যটাই প্রকট হচ্ছে

এই প্রসঙ্গে এক রপ্তানিকারক ব্যবসায়ী, নাম সমীর ঘোষ বলেন, ‘‘ভিন রাজ্য থেকে সবজী এই পথ দিয়েই বাংলাদেশে রপ্তানি করা হয়। যার সেই সব লরিগুলি সবই ২০ চাকার৷ রাজ্য সরকারের নিষেধাজ্ঞার জন্য ছোট লরিতে এই সব সামগ্রী আনতে হলে ভাড়া বেশী পড়ে। তাছাড়া তিন মাসের চুক্তিতে সামগ্রী সরবরাহ করার যে চুক্তি তা কার্যকর হবে না। ফলে বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক খারাপ হবে। বছরে প্রায় সাড়ে চার হাজার কোটি টাকার ব্যবসা হত। এবার তা কমে যাবে। অর্থনৈতিক ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে রাজ্য সহ দেশ।’’

অন্যদিকে, মালদহ মার্চেন্ট চেম্বার অব কমার্সের সম্পাদক জয়ন্ত কুণ্ডু বলেন, ‘‘দাম বাড়বে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের। এই নিষেধাজ্ঞা জারির পর লোহা, রড, সিমেন্ট সহ ডাল ব্যবসায়ীদের সমস্যা হবে।’’

আরও পড়ুন: সলমনের সঙ্গে কাজ করার জন্য ১০০০ বার ফোন করেছেন প্রিয়াঙ্কা

https://youtu.be/CbM2qH9a6q4

----
--