মীরপুর: টেস্ট সিরিজ পকেটে পোরার পর ঘরের মাঠে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিরুদ্ধে ওয়ান ডে সিরিজের শুরুতেই জয় তুলে নিল বাংলাদেশ৷ শের-ই-বাংলা ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে সিরিজের প্রথম একদিনের ম্যাচে ক্যারিবিয়ানদের ৫ উইকেটে পরাজিত করল টাইগাররা৷

তামিম ইকবাল ও শাকিব আল হাসান ওয়ান ডে দলে ফিরে আসায় বাংলাদেশের শক্তি বেড়েছে নিশ্চিত৷ তবে টাইগারদের জয়ের ভিত গড়ে দেন বোলাররা৷ বিশেষ করে দুই পেসার মুস্তাফিজুর রহমান ও মাশরাফি মোর্তাজা ক্যারিবিয়ান ব্যাটিংয়ের মেরুদণ্ড ভেঙে দেন৷ ব্যাটিংয়ে লিটন, মুশফিকুর ও শাকিবের মিলিত অবদান বাংলাদেশকে জয়ের লক্ষ্যে পৌঁছে দেয়৷

আরও পড়ুন: অভিষেকেই বিশ্বরেকর্ড এই ক্রিকেটারের

টসে জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৫০ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৯৫ রানের বেশি তুলতে পারেনি৷ জবাবে মুশফিকের হাফসেঞ্চুরিতে ভর করে ৩৫.১ ওভারে ৫ উইকেটের বিনিময়ে জয়ের জন্য প্রয়োজনীয় ১৯৬ রান তুলে নেয় বাংলাদেশ৷

ম্যাচে দুই স্পিনারকে দিয়ে বোলিং আক্রমণ শুরু করে বাংলাদেশ৷ নতুন বল হাতে দুই প্রান্তে দৌড় শুরু করেন মেহেদি হাসান ও শাকিব৷ পাওয়েলকে ফিরিয়ে শাকিব দলকে প্রাথমিক সাফল্য এনে দিলেও ওয়েস্ট ইন্ডিজকে কোণঠাসা করার দায়িত্ব নিজেদের কাঁধে তুলে নেন দুই পেসার মাশরাফি ও মুস্তাফিজুর৷

নিজেদের মধ্যে তিনটি করে উইকেট ভাগ করে নিয়ে মাশরাফি-মুস্তাফিজই ক্যারিবিয়ানদের হতদ্যম করে দেন৷ একটি করে উইকেন নেন মেহেদি ও রুবেলও৷

আরও পড়ুন: বিস্ময় বালকের ডেলিভারিকে শতাব্দীর সেরা বলছেন ওয়ার্ন

ওয়েস্ট ইন্ডিজের হয়ে সর্বোচ্চ ৪৩ রান করেন শাই হোপ৷ এছাড়া রোস্টন চেস ৩২ ও কীমো পল ৩৬ রানের যোগদান রাখেন৷ ২৫ রান করেন মার্লন স্যামুয়েলস৷ড্যারেন ব্র্যাভোর অবদান ১৯৷

বাংলাদেশের হয়ে ওপেন করতে নেমে কাম ব্যাক ম্যাচে ১২ রানের বেশি সংগ্রহ করতে পারেননি তামিম৷ ইমরুল কায়েস আউট হন ৪ রান করে৷ লিটন দাস ৪১, শাকিব ৩০ ও সৌম্য সরকার ১৯ রান করে সাজঘরে ফেরেন৷ মুশফিকুর অপরাজিত থাকেন ব্যক্তিগত ৫৫ রানে৷ মাহমুদুল্লাহ ১৪ রান করে নটআউট থাকেন৷

--
----
--