বৃহস্পতিবারেই নির্বাচনের দিন ঘোষণা, নাশকতা রুখতে নামল সেনা

ঢাকা: রাত পোহালেই জাতীয় নির্বাচনের ঢাকে কাঠি পড়বে। উত্তেজনায় ফুটছে বাংলাদেশ। বৃহস্পতিবারই দিনক্ষণ ঘোষণা করতে চলেছে নির্বাচন কমিশন। এদিকে সরকারপক্ষ অর্থাৎ আওয়ামী লীগ ও বিরোধী বিএনপি সহ ঐক্য জোটের নেতৃত্বরা চাইছেন নির্বাচন পিছিয়ে দিতে। কিন্তু অনড় কমিশন। অন্যতম আর এক বিরোধী দল জাতীয় পার্টি (এরশাদ নেতৃত্বাধীন) চাইছে সঠিক সময়েই হোক ভোট।

বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশনের তরফে জানানো হয়, বৃহস্পতিবার সন্ধে সাতটা নাগাদ জাতীয় নির্বাচনের সময়সূচী ঘোষণা করবেন মুখ্য নির্বাচনী কমিশনার কে এম নুরুল হুদা। তিনি জাতীর উদ্দেশ্যে ভাষণ দেবেন সরকারি টিভি ও রেডিওতে।

পড়ুন: ২০০ বেশি গণকবর! আইএসের হত্যালীলার ছবি দেখলে শিউরে উঠবেন

নির্বাচনের দিন ও সূচি ঘোষণার আগে থেকেই পরিস্থিতি সামাল দিতে নামানো হয়েছে সেনা ও নিরাপত্তারক্ষীদের বিশেষ দল। কেউ বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করলে বাহিনীকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্বাচন কমিশন (ইসি) নির্দেশ দেবে। এমনই জানিয়েছেন ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ। সেই মতো বগুড়ায় নামানো হয়েছে ব়্যাব বাহিনী। রাস্তায় রাস্তায় টহল দিচ্ছে তারা। এছাড়া রাত থাকতেই সেনা ও নিরাপত্তা রক্ষীদের বিভিন্ন স্থানে মোতায়েন করার কাজ শুরু হয়ে গেল।

নির্বাচনে নাশকতা ঘটাতে পারে জেএমবি, নব্য জেএমবি, হিজবুত তাহরীর সহ বিভিন্ন জঙ্গি সংগঠন। গোয়েন্দা বিভাগ এই সতর্কতা আগেই দিয়েছে। পরিস্থিতি অনুধাবন করে আগে থেকেই চলছে জঙ্গি ডেরায় অভিযান। ধরা পড়ছে একাধিক জঙ্গি। ঢাকার কাছেই জেএমবির ডেরায় অভিযান চালিয়ে উদ্ধার করা হয়েছে নির্বাচনে নাশকতার ছক।

পড়ুন: বিমান হামলায় খতম ২৫ জঙ্গি

বুধবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পূর্ব ঘোষিত সাংবাদিক সম্মেলন বাতিল করা হল। নির্বাচনে নিরপেক্ষ সরকার থাকা নিয়ে বিরোধী বিএনপি এবং কয়েকটি সংগঠনের মিলিত জাতীয় ঐক্য জোটের আহ্বান মেনে নিতে রাজি নয় সরকার। এমনই অবস্থানে অনড় সরকার পক্ষ। অন্যদিকে বিরোধীরাও তাদের অবস্থানে অটল।
সবমিলে রাজনৈতিক পরিস্থিতি সরগরম বাংলাদেশে। ভারত ও মায়ানমার সীমান্তবর্তী এলাকায় বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে নিরাপত্তা।

পূর্ববর্তী দশম জাতীয় নির্বাচনে রিগিংয়ের অভিযোগ তুলে ভোট বয়কটের পথে গিয়েছিল বিরোধী বিএনপি ও তাদের জোটসঙ্গী জামাত ইসলামি। তাদের নেতৃত্বে গণতন্ত্র বাঁচানোর নামে শুরু হয়েছিল হিংসাত্মক আন্দোলন। তার জেরে শতাধিক মানুষের মৃত্যু হয়েছিল। এবার একাদশ জাতীয় নির্বাচনের আগে দুর্নীতির মামলায় জেলবন্দি হয়েছেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী তথা বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়া। জামাত ইসলামির ভোট রেজিস্ট্রেশন বাতিল হয়েছে।

আসন্ন জাতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগের কাছে পুনরায় সরকার গড়ার পথ খুলছে, প্রশ্নের উত্তর দেবেন বাংলাদেশের জনগণ। আপাতত পদ্মা-মেঘনার দেশ মুখিয়ে নির্বাচনের দিনক্ষণ জানতে।

----
-----