মুক্তিযুদ্ধের সময় পাশে থাকার জন্য ভারতবাসীকে ধন্যবাদ: হসিনা

স্টাফ রিপোর্টার: হাসিনার গলায় শুধুই ভারতের প্রতি কৃতজ্ঞতার সুর শোনা গেল৷ কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন মঞ্চেও ভারতের প্রতি তাঁর অগাধ ভালবাসার কথা বললেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী৷ গ্রহণ করলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফে সাম্মানিক ডি লিট৷

শনিবার আসানসোলের কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন অনুষ্ঠানে যোগ দেন শেখ হাসিনা৷ অনুষ্ঠান মঞ্চ থেকে তিনি বলেন, ‘‘এই অনুষ্ঠানে যখন আমাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল আমি রাজি হয়েছিলাম কাজী নজরুল ইসলামের নামে এই বিশ্ববিদ্যালয় বলে৷ এই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এরকম একটা সম্মান আমার জন্য অনেক বড় পাওয়া৷ শুধু আমার নয়, বাংলাদেশবাসীর কাছেও এদিন বড় গর্বের৷’’

আরও পড়ুন: কবিগুরুর ‘ঘরে’ এসে বারবার বাবাকে মনে পড়ছিল হাসিনার

- Advertisement DFP -

নজরুল ইসলাম ভারতের জন্মগ্রহণ করলেও ওপার বাংলার সঙ্গে তাঁর নিবিড় সম্পর্ক৷ হাসিনা বলেন, ‘‘বাংলা ভাগ হতে পারে৷ কিন্তু রবীন্দ্র নজরুল ভাগ হবেন না৷ তাঁরা সকলের৷ দুই বাংলার৷’’ বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর তাই নজরুল ইসলাম ওপার বাংলার জাতীয় কবির সম্মান পান৷ বাংলাদেশের প্রতিটি সংগ্রামের সঙ্গে নজরুলের নাম জড়িয়ে রয়েছে, বলেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী৷

এদিনও হাসিনা বারবার ভারতকে ধন্যবাদ জানান ’৭১-এর মুক্তিযুদ্ধে বাংলাদেশের পাশে থাকার জন্য৷ বলেন, ‘‘এক কোটির উপর শরণার্থীকে ভারত আশ্রয় দিয়েছিল সেদিন৷ তাঁদের জন্য ভারতীয়রা নিজেদের খাবার ভাগ করে খেয়েছিল৷ আমার ভারতীয়দের প্রতি কৃতজ্ঞতার শেষ নেই৷’’

আরও পড়ুন: ছিটমহল বিনিময় প্রসঙ্গ টেনে বর্তমানকে ১৯৭১-এর সঙ্গে তুলনা হাসিনার

Advertisement
----
-----