ভিসা নিয়ে ভারতে এসে ব্যাংক ডাকাতি বাংলাদেশির

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: এর আগে যতবার ভারতের কোনও অপরাধের সঙ্গে কোনও বাংলাদেশির নাম জড়িয়েছে, ততবারই সামনে এসেছে অনুপ্রবেশের অভিযোগ৷ তবে এবার বৈধ পথে ভারতে এসে ব্যাংক ডাকাতি করার অভিযোগে গ্রেফতার করা হল এক বাংলাদেশি নাগরিককে৷

দুর্গাপুজোর সময় মহানগরীর একটি ব্যাংকে ডাকাতি করার সময় সে ভারতের ভিসা নিয়ে পাসপোর্ট-সহ এসেছিল৷ তার পর বৈধ উপায়ে এ দেশ ছেড়েছিল৷ কিছুদিন পর আবার বৈধ অনুমতি নিয়ে ভারতে আসতে গিয়ে সে ধরা পড়ল৷ কারণ, তার বিরুদ্ধে লুক আউট নোটিশ জারি করা হয়েছিল৷ তার ভিত্তিতেই ভারতে প্রবেশের সময় তাকে গ্রেফতার করা হয়৷

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, সফিকুল ইসলাম বাংলাদেশের খুলনার বাসিন্দা৷ গত মাসের শেষে সে বৈধভাবে বাংলাদেশ থেকে ভারতে আসে৷ প্রথমে থাকতে শুরু করে মালদহে৷ সেখানে কয়েকটি ব্যাংকে ডাকাতির ছক কষে৷ কিন্তু তা সফল হয়নি৷ এর পর সেখান থেকে সফিকুল কলকাতায় চলে আসে৷ কলকাতায় এসে সে নিউ মার্কেটের একটি হোটেলে থাকতে শুরু করে৷ তার পর কলকাতার জওহরলাল নেহরু রোডের একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকে টার্গেট করে৷ ব্যাংকের আশপাশের রেকি করে৷ কোনদিক থেকে ব্যাংকে ঢুকলে কেউ টের পাবে না, সেটাও দেখে৷ এর পর আর ২৬ সেপ্টেম্বর রাতে জানলা কেটে ওই ব্যাংকে ঢোকে সে৷ তার পর প্রায় ১৮ ঘণ্টা ব্যাংকের মধ্যেই ছিল৷ ছুটি থাকায় তার কাজ করতেও সুবিধা হয়৷ ভল্ট ভেঙে প্রায় ৩০ লক্ষ টাকা নিয়ে চম্পট দেয়৷

- Advertisement -

পুলিশের দাবি, তার কাছে বৈধ ভিসা থাকায় কেউ আর সন্দেহ করেনি। সেই কারণেই সে আর ধরা পড়েনি৷ ৩০ সেপ্টেম্বর ব্যাংক খোলার পর বিষয়টি সামনে আসে৷ অভিযোগ দায়ের হয়৷ তদন্ত শুরু করে পুলিশ৷ পরীক্ষা করা হয় ব্যাংক ও তার সংলগ্ন এলাকার সিসিটিভি ফুটেজ৷ তা থেকেই পুলিশ জানতে পারে নিউ মার্কেটের কোন হোটেলে সে ছিল৷ সেখানে গিয়ে হোটেলের রেজিস্ট্রার চেক করে সফিকুলের হদিশ মেলে৷ আদালতের দ্বারস্থ হয়ে সফিকুলের বিরুদ্ধে লুক আউট নোটিশ জারি করায় পুলিশ৷

রবিবার দক্ষিণ দিনাজপুরের হিলি সীমান্ত দিয়ে ফের ভারতে আসছিল সফিকুল৷ এবারও সে বৈধভাবে আসছিল৷ কিন্তু লুক আউট নোটিশ জারি থাকায় তাকে সনাক্ত করে বিএসএফ৷ তাকে ধরে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়৷ মঙ্গলবার ধৃতকে ব্যাংকশাল আদালতে তোলে পুলিশ৷ বিচারক ধৃতকে ১৪ দিনের পুলিশি হেফাজতে পাঠিয়েছে৷ পুলিশের ধারণা, আবার কোনও অপরাধের ছকেই সফিকুল ফের ভারতে আসছিল৷

Advertisement ---
---
-----