সৌমেন শীল, বারাকপুর: যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনকে নবরূপে সাজানোর পর নতুন একটি স্টেডিয়াম গড়ল পশ্চিমবঙ্গ পূর্ত দফতর। উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বারাকপুরে তৈরি হয়েছে ওই স্টেডিয়াম।

চলতি মাসের ১৫ তারিখে রাজ্যের নতুন এই স্টেডিয়ামের উদ্বোধন করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ওই দিন মতুয়া মহাসংঘের প্রধান উপদেষ্টা বীনাপানি দেবীর জন্মশতবর্ষ। সেই উপলক্ষ্যে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বনগাঁর ঠাকুরনগরে যাবেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখান থেকে বোতাম টিপে বারাকপুরের নবনির্মিত স্টেডিয়ামের উদ্বোধন করবেন রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান।

বারাকপুর পূর্ত দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, বারাকপুরের ওই স্টেডিয়াম তৈরির জন্য ২০ বিঘা জমি নেওয়া হয়েছিল। কল্যাণী এক্সপ্রেসওয়েতে বারাকপুর ওয়ারলেস মোর থেকে দক্ষিণ দিকে ১০০ মিটার দূরে নির্মিত হয়েছে ওই স্টেডিয়াম। ১৫ বিঘা জমির উপরে তৈরি ওই স্টেডিয়ামে সাড়ে তিন হাজার দর্শক বসতে পারবেন। রয়েছে চারটি ফ্লাড লাইট। এছাড়াও রয়েছে খেলোয়াড়দের জন্য একগুচ্ছ বিশেষ ব্যবস্থা। ভিআইপি লাউঞ্জও থাকছে বারাকপুর স্টেডিয়ামে।

এই স্টেডিয়াম নির্মাণের দায়িত্ব ছিল বারাকপুর সাব ডিভিশনের পূর্ত বিভাগের উপরে। এর পরে রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্ব পূর্ত দফতরের থকছে না। উদ্বোধন হয়ে গেলে এই স্টেডিয়াম হস্তান্তর করে দেওয়া হবে বারাকপুর পুরসভার হাতে। পরবর্তী সময়ে স্টেডিয়ামের রক্ষণাবেক্ষণ সহ যাবতীয় দায়িত্ব থাকছে বারাকপুর পুরসভার হাতে।

বারাকপুরের অদূরে আরও একটি স্টেডিয়াম তৈরির কাজ চলছে বলে জানা গিয়েছে পূর্ত দফতর সূত্রে। কল্যাণী এক্সপ্রেসওয়ের উপরেই ওই স্টেডিয়ামটি তৈরি হচ্ছে নৈহাটিতে। এই স্টেডিয়ামটি আয়তনে বারাকপুরের থেকেও বড়। প্রায় ৪০ বিঘা জমির উপরে অবস্থিত ওই স্টেডিয়ামের দর্শকাসন থাকছে প্রায় সাত হাজার। ওই স্টেডিয়াম তৈরির কাজ প্রায় শেষের পথে।

১৬ কোটি ৫৫ লক্ষ টাকা বরাদ্দ হয়েছিল নৈহাটি স্টেডিয়ামের জন্য। আরও দেড় কোটি টাকা চেয়ে আবেদন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওই স্টেডিয়াম তৈরির দায়িত্বে থাকা পূর্ত দফতরের আধিকারিক অরুণ মহাজন। অতিরিক্ত টাকা বরাদ্দ হয়ে গেলেই খুব শীঘ্রই নৈহাটি স্টেডিয়াম তৈরির কাজ শেষ হয়ে যাবে বলে জানিয়েছেন অরুণবাবু।

--
----
--