এমন ব্যাটিং মেনে নেওয়া যায় না, শাস্ত্রীকে তোপ বিনোদ রাইয়ের

মুম্বই: শাস্ত্রীয় বচনে মন গলছে না সিওএ’র৷ সবরকম সুযোগ সুবিধা দেওয়া এবং কোচ-ক্যাপ্টেনের যাবতীয় আব্দার রাখার পরে বিসিসিআই জাতীয় দলের কাছ থেকে আশানুরূপ পারফরম্যান্স না পাওয়ায় হতাশ৷ ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে চলতি টেস্ট সিরিজে ভারতের চূড়ান্ত ব্যাটিং বিপর্যয়ে নাখুশ সিওএ প্রধান বিনোদ রাই৷ সুত্রের খবর, কোচ রবি শাস্ত্রীকে এই বিষয়ে সতর্ক করেছে কমিটি অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর্স৷ দেশে ফিরলে টিম ম্যানেজমেন্ট ও নির্বাচকদের সঙ্গে বিনোদ রাইদের আলোচনার টেবিলে বসার কথাও শোনা যাচ্ছে বোর্ডের অন্দরমহলে৷

আরও পড়ুন: শাস্ত্রী ভারতীয় ক্রিকেটে গ্রেগ চ্যাপেলের থেকেও বিপজ্জনক

আয়ার ল্যান্ডের বিরুদ্ধে দু’টি টি-২০ ম্যাচের সংক্ষিপ্ত সিরিজ খেলেই ইংল্যান্ডে উড়ে গিয়েছে ভারতীয় দল৷ ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টি-২০ সিরিজ জিতলেও পরবর্তী ওয়ান ডে সিরিজ হারতে হয়েছে বিরাটদের৷ তবে সীমিত ওভারে নয়, ইংল্যান্ডে কোহলিরা টেস্ট সিরিজে কেমন পারফরম্যান্স করে, সেটাই ছিল অকর্ষণের কেন্দ্রে৷

- Advertisement -

সফরের আগে গালভরা কথায় বাজার গরম করার দায়িত্ব পালণ করেছেন কোচ রবি শাস্ত্রী৷ দক্ষিণ আফ্রিকায় টেস্ট সিরিজ হারলেও ভারতের খেলা প্রশংসা কুড়িয়েছিল৷ সেই পারফরম্যান্সকে হাতিয়ার করে ব্রিটিশদের ফুৎকারে উড়িয়ে দিতে চেয়েছিলেন ভারতীয় কোচ৷ ভাবখানা এএমন ছিল যে, ক্রিকেটে পিচ-পরিবেশের ভূমিকা টিম ইন্ডিয়ার কাছে গৌণ বিষয়৷ শাস্ত্রীর দাবি ছিল, যে কোনও পিচ ও পরিস্থিতিতে ভারত ম্যাচ জিততে পারে৷

আরও পড়ুন: শাস্ত্রীকে কাঠগড়ায় তুলছেন ভাজ্জি

টেস্ট সিরিজের আগে বেশ কয়েকদিন হাতে সময় পেলেও সেই অর্থে প্রস্তুতিতে নজর দেওয়ার প্রয়োজন মনে করেনি ভারতীয় দল৷ বরং ছুটির মেজাজে ক্রিকেটারদের ঘুরে বেড়াতে দেখা গিয়েছে৷ একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচের দৈর্ঘ চার দিন থেকে কমিয়ে তিন দিন করেছে ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্টই৷ এমন কি এজবাস্টন টেস্টে হারের পরও ক্রিকেটারদের অনুশীলনে ছুটি দিতে দেখা গিয়েছে কোচ শাস্ত্রীকে৷ যার মিলিত ফলশ্রুতিই যে লর্ডস টেস্টে ভারতের ভরাডুবির কারণ, সে বিষয়ে একমত বিশেষজ্ঞরা৷

আরও পড়ুন: সিরিজে ফিরতে বিরাটদের কী ড্রিঙ্কস দেবেন শাস্ত্রী

এজবাস্টনে জয়ের জন্য ১৯৪ রানের লক্ষ্যমাত্রা তাড়া করতে নেমে ১৬২ রানে অলআউট হয়ে যায় ভারত৷ লর্ডসের দুই ইনিংসে কোহলিদের সংগ্রহ যথাক্রমে ১০৭ ও ১৩০৷ চার ইনিংসে একবারই মাত্র দু’শোর গন্ডি টপকেছে ভারতীয় দল৷

টিম ইন্ডিয়ার এমন চূড়ান্ত ব্যাটিং ভরাডুবি ক্ষুব্ধ করেছে কমিটি অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর্সকে৷ সূত্রের খবর, ইংল্যান্ডের পরিবেশে মানিয়ে নেওয়ার জন্য এত আগে দল পাঠিয়েও এমন ব্যাটিং মেনে নিতে পারছেন না বিনোদ রাই৷ তিনি সেকথা জানিয়েছেন কোচ শাস্ত্রীকে৷ ইংল্যান্ড থেকে দল ফিরলে শাস্ত্রীসহ টিম ম্যানেজমেন্টের সঙ্গে সিওএ এই বিষয়ে আলোচনা করবে৷ একই সঙ্গে সিরিজ শেষে নির্বাচকদের সঙ্গেও কথা বলবে কমিটি অফ অ্যাডমিনিস্ট্রেটর্স৷

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপ পর্যন্ত মেয়াদ বাড়ল ভারতীয় কোচের

বোর্ডের তরফে এক সিনিয়র কর্তা বলেন, ‘দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে ব্যর্থ হওয়ার পর ক্রিকেটাররা ঠাসা ক্রীড়াসূচিকে দায়ি করেছিল৷ হাতে সময় না থাকায় প্র্যাকটিস ম্যাচ ছাড়াই মাঠে নামতে হওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছিল টিম ম্যানেজমেন্ট৷ ইংল্যান্ড সফরে সেরকম কোনও অযুহাত দিতে পারবে না দল৷ তাছাড়া মনে রাখা উচিত যে, ২০১৪-১৫ অস্ট্রেলিয়া সফরে এই সাপোর্ট স্টাফদের অধীনেই ভারত সিরিজ হেরেছিল৷ ফ্লেচার নামে মাত্র কোচ ছিলেন৷ তার আগেই ফ্লেচারের পছন্দের বোলিং কোচ জো ডয়েস ও ফিল্ডিং কোচ ট্রেভর পেনিকে ছেঁটে ফেলা হয়েছিল৷ শাস্ত্রীকে টিম ডিরেক্টর নিয়োগ করে বাঙ্গার, ভরত অরুনদেরই সাপোর্ট স্টাফ নিয়োগ করা হয়েছিল৷ সুতরাং বিদেশ সফরে এই কোটিং টিমের ধারাবাহিক ব্যর্থতার দিকটি নিশ্চিতভাবেই বোর্ডের নজরে রয়েছে৷’

Advertisement ---
---
-----