ফাইনালের আগে দ্বন্দ্ব এবং আবেগে ভাসছেন ধোনি

ওয়াংখেড়ে: আইপিএলের রবিবাসরীয় ফাইনালে মুখোমুখি চেন্নাই সুপার কিংস এবং সানরাইজার্স হায়দরাবাদ৷ সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে ধোনি জানান ফাইনালের ১১জনের স্কোয়াডে কোন বোলারকে রাখবেন তা নিয়ে দ্বন্দ্বে ভুগছেন৷ পাশাপাশি চেন্নাইয়ের সঙ্গে নিজের আবেগ এবং দু’বছর পর ফিরে এসেও সুপার কিংসের ভালো পারফরম্যান্সের কথা উল্লেখ করলেন সুপার কিংস অধিনায়ক৷

ওয়াটসন, রায়ডু, ধোনি, ব্রাভো, রায়না-কে নিয়ে শক্তিশালী ব্যাটিং স্কোয়াড রয়েছে চেন্নাইয়ের৷ আবার ধোনির ঝুলিতে রয়েছেন নুঙ্গি এনগিডি, জাদেজা, শার্দুল ঠাকুর, দীপক চাহারের মত বোলিং অস্ত্র৷ স্বভাবতই ফাইনালে শিখর ধাওয়ান, কেন উইলিয়ামসনদের থামানোর জন্য ঠিক কাকে মাঠে নামাবেন তা নিয়ে দ্বন্দ্বেই রয়েছেন ‘ক্যাপ্টেন কুল’৷ ফাইনালের আগে সাংবাদিক সম্মেলনে এক মজার যুক্তি দেন মাহি৷ বোলারদের খেলানো নিয়ে সুপার কিংস অধিনায়ক বলেন, ‘দেখুন আমার কাছে বেশ কয়েকটি বাইক এবং গাড়ি রয়েছে৷ কিন্তু কখনোই একই সময়ে একই সঙ্গে সবকটি বাইকে চড়তে পারি না আমি৷ সেরকমই আপনার কাছে যখন ছ-সাতজন বোলার থাকে আপনার সিদ্ধান্ত নিতে অসুবিধে হবেই৷ কারণ সবাইকে একসঙ্গে খেলাতে পারবেন না আপনি৷’

২০১৫ থেকে দু’বছরের জন্য আইপিএল থেকে নির্বাসিত ছিল চেন্নাই সুপার কিংস৷ এবছর আইপিএলে ফিরে ধোনির নেতৃত্বে সপ্তমবারের জন্য ফাইনালে উঠেছে চেন্নাই৷ কিন্তু এই আইপিএলে চেন্নাই সমর্থকদের হতাশ করে ধোনিদের সমস্ত হোমম্যাচ অনুষ্ঠিত হয় পুণেতে ৷ চেন্নাই সমর্থকদের হতাশার কথা উল্লেখ করে ধোনি বলেন, ‘এই দলের সঙ্গে সব সময় একটা আবেগ জড়িয়ে থাকে৷ এবারে টুর্নামেন্টের শুরুতেও তা ছিল৷ কিন্তু আপনি আবেগ নিয়ে সব সময় চলতে পারেন না৷ দু’বছর আমরা ছিলাম না৷ তাও আইপিএলে আমাদের সমর্থক বেড়েছে৷ আমি চাইছিলাম ওদের কথা ভেবে এবারে কয়েকটা ম্যাচ অন্তত এখানে হোক৷ যাই হোক ফ্যানদের জন্য সুখবর আমরা এখন আইপিএলের ফাইনালে৷’

Advertisement ---
---
-----