লুকাকুর জোড়া গোলে সহজ জয় বেলজিয়ামের

সোচি: বড় ব্যবধানে জয় দিয়ে বিশ্বকাপ অভিযান শুরু করল বেলজিয়াম৷ প্রথমবার বিশ্বকাপ খেলা পানামার বিরুদ্ধে হ্যাজার্ডরা জয় পেল ৩-০ ব্যবধানে৷ রাশিয়ার রণক্ষেত্রে বেলজিয়ামকে কেন ‘ডার্ক হর্স’ ধরা হয়েছে প্রথম ম্যাচেই সেটা বুঝিয়ে দিল লুকাকুরা৷

ম্যাচের প্রথমার্ধে গোলমুখ খুলতে না-পারলেও দ্বিতীয়ার্ধে তিনটি গোল করে প্রথম ম্যাচ থেকে তিন পয়েন্ট তুলে নেয় টিনটিনের দেশ৷ দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই অর্থাৎ ৪৭ মিনিটে বক্সের ভিতর থেকে ভলিতে দুরন্ত গোল মার্টেন্সের৷ এরপর ৬৯ ও ৭৫ মিনিটে দুটি গোল করেন লুকাকু৷ ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড তারকার জোড়া গোলে হাসতে হাসতে জয় পায় বেলজিয়াম৷

টানা ১৯ ম্যাচ অপরাজিত থেকে পানামার মুখোমুখি হয়েছিল বেলজিয়াম। বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে খুব একটা পরীক্ষা দিতে হয়নি দলটিকে। এদিন প্রথম থেকে আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলে বেলজিয়াম। কিন্তু প্রথমার্ধের গোলের মুখ খুলতে পারেনি৷ শুরুতেই কারেসকোরের শট ফিরিয়ে দেন পানামা গোলরক্ষক জেমি পেনেদো। এর পর তাঁর দস্তনা ব্যর্থ করে দেন ম্যার্টেন্সের প্রচেষ্টাও।

- Advertisement -

ম্যাচের দ্বাদশ মিনিয়ে রোমান টোরেসের মিস ব্যাকপাসে সুযোগ এসে যায় বেলজিয়াম তারকা ইডেন হ্যাজার্ডের সামনে। কিন্তু গোলরক্ষককে একা পেয়েও সুযোগ কাজে লাগাতে পারেননি চেলসির এই ফরোয়ার্ড। ২৩ মিনিটে টোরেসের নিখুঁত স্লাইডিংয়ে বেঁচে যায় পানামা। কেভিন ডি’ব্রুইনের ক্রস পায়ে ঠেকালেই গোল পেতে পারত লুকাকু। কিন্তু বল তাঁর কাছে যাওয়ার আগেই দারুণ এক স্লাইডিংয়ে নিশ্চিত গোল বাঁচিয়ে দেন টোরেস।

৩৯ মিনিটে পানামার ত্রাতা হয়ে ওঠেন পেনেদো। হ্যাজার্ডের বুলেট গতির শট আটকে দেন পানামা গোলরক্ষক। তবে গোলের জন্য বেলজিয়ামের অপেক্ষা শেষ হয় দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে। ৪৭ মিনিটে চমৎকার ভলিতে পানামার জালে বল জড়িয়ে ‘ডার্ক হর্স’-দের এগিয়ে দেন মার্টেন্স। দারুণ ছন্দে থাকা লুকাকু ৬৯ মিনিটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন। ডি’ব্রুইনের ক্রসে চমৎকার হেডে বল জালে পাঠান ম্যান ইউ-র এই ফরোয়ার্ড।

বিশ্বকাপের যোগ্যতাঅর্জন পর্বে দেশের হয়ে সর্বোচ্চ ১১টি গোল করা লুকাকু এদিন দ্বিতীয় গোলটি করেন ৭৩ মিনিটে৷ প্রতি আক্রমণ থেকে বল নিয়ে গোলরক্ষকের মাথার ওপর দিয়ে বল জালে পাঠান তিনি। দেশের জার্সিতে শেষ ১০টি ম্যাচ ১৫টি গোল করেন লুকাকু৷।