সুপার ফ্লপ তমকা নিয়ে আইপিএল অভিযান শেষ স্টোকসের

জয়পুর: নিলামে তিনিই ছিলেন লিগের সবচেয়ে দামী ক্রিকেটার৷ এগারোর আইপিএলে সাড়ে বারো কোটি টাকায় তাঁকে দলে নিয়েছিল রাজস্থান রয়্যালস৷ বিরাট এই দর পাওয়ার কারণটা ছিল খুব স্বাভাবিক৷ গত আইপিএলে লিগের সেরা ভ্যালুয়েবেল ক্রিকেটারের মুকুট জিতেছিলেন বেন স্টোকস৷ আইপিএলে কামব্যাক বলে কথা! তাই সেরা তারকাকে দলে নিতে কোনও কসুর করেনি প্রথম আইপিএলের চ্যাম্পিয়ন ফ্র্যাঞ্চাইজি রাজস্থান৷ ব্রিটিশ তারকা অলরাউন্ডারকে দলে নিয়ে তাই ভাগ্য ফেরাতে চেয়েছিল রয়্যালস৷

ঘটা করে স্টোকসকে দলে নিলেও বিশেষ কোনও লাভ হয়নি রাজস্থানের৷ পাকিস্তানের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজে খেলতে নাইট ম্যাচের পর দেশে ফিরে গিয়েছেন স্টোকস৷ ইংল্যান্ডের টেস্ট দলে ডাক পাওয়া জোস বাটলারও স্টোকসের সঙ্গে দেশে ফিরেছেন৷ দুই ব্রিটিশ তারকাকে ছাড়াই তাই রাজস্থানকে শেষ ম্যাচে নামতে হবে৷ লিগের শেষ ল্যাপে এসে হিসেব বলছে ১৩ ম্যাচ শেষে স্টোকসের থেকে ফ্র্যাঞ্চাইজির প্রাপ্তি মাত্র ১৯৬ রান৷ সঙ্গে বল হাতে মাত্র ৮ উইকেট৷ ‘সতোরোর সুপারহিট’ স্টোকসই এখন তাই ‘আঠেরোর সুপারফ্লপ’৷

২০১৭ সালে পুণের জার্সি গায়ে ১২ ম্যাচে স্টোকসের সংগ্রহ ছিল ৩১৬ রান৷ যার মধ্যে গুজরাত লায়ন্সের বিরুদ্ধে ১০৩ রানের অপরাজিত ইনিংস৷ বোলিংয়ে ১২ উইকেট তুলে নিয়েছেলেন ব্রিটিশ অলরাউন্ডার৷ সেই স্টোকসই কিনা ব্যাট হাতে এমন ব্যর্থ৷ কারণ হিসেবে অনেকেই বলছেন দীর্ঘদিন জাতীয় দলে না থাকায় ফর্মে ছিলেন না স্টোকস৷ তার সঙ্গে নাইটক্লাবে জামেলার ঘটনা ক্রিকেট থেকে মনোসংযোগও সরিয়ে দিয়েছিল৷ দিনের শেষে এতসব দিক না বিচার করেই স্টোকসকে দলে নিয়ে পস্তেছে রয়্যালস৷ রাহানের নেতৃত্ব নিয়েও প্রশ্ন তুলছেন অনেকে৷ তাঁদের যুক্তি স্টিভ স্মিথ পুণেতে থাকাকালিন স্টোকসে যেভাবে ব্যবহার করেছেন রয়্যালস কাপ্তান রাহানে নাকি সেভাবে ব্যবহারই করতে পারেনি তাঁকে৷ সেই নিয়ে অবশ্যই বিতর্ক চলতে পারে৷ তবে এগারোর আইপিএল শেষে স্টোকসকে কিন্তু ফ্লপ তমকা নিয়েই ভারত ছাড়তে হল৷

Advertisement
---