মোদী জামানার সবথেকে বড় দূর্নীতি ফাঁস করলেন বাংলার গেরুয়া নেতা

ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ফাঁস হতে চলেছে মোদী জামানার সবথেকে বড় দুর্নীতি। তাও আবার সেই দুর্নীতি ফাঁস হতে চলেছে মমতার রাজ্য বাংলা থেকে। পুলিশের কাছে উপযুক্ত নথি সহ অভিযোগ দায়ের করার পর জানালেন গেরুয়া নেতা অশোক সরকার।

আরও পড়ুন- জেলায় গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব থামান, মমতার মন্ত্রীকে পরামর্শ সুজনের

রবিবার বিধাননগর পূর্ব থানায় বঙ্গ বিজেপি-র রাজ্যস্তরের একাধিক নেতার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন অশোকবাবু। শুধু তাই নয়, তাঁর করা অভিযোগপত্রে নাম রয়েছে রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সংঘের একাধিক প্রচারকের। দুই সেবকই বাংলায় সক্রিয়ভাবে সংঘের প্রচারকের কাজ করছেন।

- Advertisement -

আরও পড়ুন- কড়া নিরাপত্তায় দ্বিতীয় নাগরিকপঞ্জীর তালিকা প্রকাশ অসমে

শিবসেনার সাধারণ সম্পাদক তথা মুখপাত্র অশোক সরকারের অভিযোগ, পেট্রোল পাম্প এবং গ্যাসের ডিলারশিপ পাইয়ে দেওয়ার জন্য রাজ্যের বিজেপি কর্মীদের থেকে বিপুল পরিমাণ টাকা তুলেছে বাংলার বিজেপির রাজ্য নেতারা। এই দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত রয়েছেন রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ সহ সাধারণ সম্পাদক এবং সাংগঠনিক সম্পাদক সুব্রত চট্টোপাধ্যায় সহ অন্যান্য রাজ্যস্তরের নেতারা। বিদ্যুৎ এবং জলধর নামের দুই ব্যক্তিও এই দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত বলে জানিয়েছেন অশোকবাবু। অভিযুক্ত এই দুই ব্যক্তি সংঘের উত্তরবঙ্গ এবং দক্ষিণবঙ্গের প্রান্তিক প্রচারক।

অভিযোগপত্র হাতে অশোক সরকার

কীভাবে হয়েছে এই দুর্নীতি? এই বিষয়টিও খোলসা করেছেন অশোক সরকার। তিনি জানিয়েছেন যে তিনটি রাষ্ট্রায়ত্ত তেল সংস্থার তরফে রাজ্য বিজেপি নেতৃত্বের সঙ্গে যোগাযোগ করে গ্যাসের ডিলারশিপের জন্য বিভিন্ন জেলায় ভাগ করে ২৩৫ টি অনুরোধপত্র চাওয়া হয়। রাজ্যের বহু বিজেপি কর্মী ডিলারশিপের জন্য আবেদন করেছিলেন। এবং ডিলারশিপ পাইয়ে দেওয়ার জন্য বিজেপি রাজ্য নেতারা কর্মীদের থেকে কাছ থেকে কোটি কোটি টাকা তুলেছিলেন। যদিও প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী মেলেনি পেট্রোল পাম্প বা গ্যাসের ডিলারশিপ।

সেই অভিযোগপত্র

অশোক সরকারের অভিযোগ অনুসারে মাত্র ১৪৯ জন ডিলারশিপ পেয়েছেন। বাকি টাকা আত্মসাৎ করে ফেলেছে বাংলার বিজেপি নেতারা। অশোকবাবু বলেছেন, “মোদী সরকারের চার বছর সময়ের মধ্যে এটাই সম্ভবত সবথেকে বড় দুর্নীতি। যা খুব শীঘ্রই ফাঁস হতে চলেছে।” বাংলার বাইরেও দেশের বিভিন্ন প্রান্তে এই দুর্নীতির জাল ছড়িয়ে রয়েছে বলেও দাবি করেছেন শিবসেনার রাজ্য সাধারণ সম্পাদক তথা মুখপাত্র অশোক সরকার। তাঁর অভিযোগ, “বাংলার বাইরেও আমার মনে হয় অসম, ত্রিপুরা, কেরালা, অন্ধ্রপ্রদেশ এবং তেলেঙ্গানা রাজ্যেও এই ধরনের দুর্নীতি হয়েছে।”

Advertisement ---
---
-----