কলকাতা: ভোটের ফলাফল ঘোষণার পর তিন দিনে পরেও অব্যাহত বাংলা জুড়ে সন্ত্রাস৷ শাসক-বিরোধী আক্রমণে অশান্ত বাংলা৷ রাজ্য জুড়ে চলতে থাকা অশান্তি বন্ধ না হলে নতুন সরকারকে ‘শপথ’ নিতে দেওয়া হবে না বলে আগেই হুঁশিয়ারি দিয়ে রেখেছে বিরোধী বিজেপি৷ নির্বাচন পরবর্তী সন্ত্রাস রুখতে রাজ্যপালের দ্বারস্থ হয়েছেন জোটের নেতারা৷ সন্ত্রাস রুখতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে রাজ্যপালের কাছে স্মারকলিপি জামা দিয়েছেন সূর্যকান্ত মিশ্র ও অধীর চৌধুরী৷ বিজেপির রাজ্য সম্পাদকের তালে তাল মিলিয়ে সূর্যের মন্তব্য, ‘‘রাজ্যজুড়ে হিংসা চলছে৷ যে দল সিংসার পরিবেশ তৈরি করছে, সেই দলের শপথ-গ্রহণ অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়ার ইচ্ছা আমাদের নেই৷’’

সোমবার সকাল থেকেই দফায় দফায় সন্ত্রাস-হিংসায় উত্তপ্ত হয়ে ওঠে গোটা বাংলা৷ গুলি-বোমা-মারধর৷ ফের সংবাদ শিরোনামে বীরভূম৷ নানুরে তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দলের ফলে প্রাণ গেল এক তৃণমূল কর্মীর৷ জানা গিয়েছে, মৃত ব্যক্তি কাজল শেখের অনুগামী৷ গতকাল নানুরে কাজল শেখের অনুগামীদের উপর হামলা চালিয়েছিল প্রাক্তন বিধায়ক গদাধর হাজরা ও অনুব্রজ মণ্ডলের অনুগামীরা৷ গদাধরের অনুগামীদের অভিযোগ, নানুরে ইচ্ছাকৃত ভাবে গদাধর হাজরাকে হাড়িয়ে দিয়েছে কাজল শেখের অনুগামীরা৷ অন্তর্ঘাতেরও অভিযোগ করেছেন তাঁরা৷

Advertisement

cpim2এদিন সকালেই হলদিয়ার দুর্গাচকে আক্রান্ত হন সিপিএমের বেশ কয়েকজন সমর্থক৷ মঞ্জুশ্রীতে দুই তৃণমূল সমর্থককে খুনের চেষ্টার অভিযোগ ওঠে সিপিএম আশ্রিত দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে৷ জানা গিয়েছে, সোমবার দুর্গাচকের একটি সিপিএম পার্টি অফিসে ভাঙচুর চালায় একদল তৃণমূল কংগ্রেসের দুষ্কৃতী৷ দখল করা হয় পার্টি অফিস৷ যদিও, সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব৷ ঘটনায় এখনও কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ৷

জামুরিয়াতেও আক্রান্ত সিপিএম৷ আগুল লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে তাঁদের পার্টি অফিসে৷ এলাকার পরিস্থিতি থমথমে৷ মঞ্জুশ্রীতে দুই তৃণমূল সমর্থকের বাড়ি পুড়িয়ে দিয়ে তাঁদের খুনের চেষ্টার অভিযোগ উঠল সিপিএমের বিরুদ্ধে৷ আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাদের ভর্তি করা হয়েছে স্থানীয় হাসপাতালে৷ ঘটনায় এখনও পর্যন্ত এক সিপিএম সমর্থককে গ্রেফতার করতে পেরেছে পুলিশ,বাকিরা পলাতক বলে জানা গিয়েছে৷

রাস্তার ধারে রাখা গাড়ির কাচ ভাঙাকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্রের চেহারা নিল দক্ষিণ ২৪ পরগনার নাদিয়াল। পুলিশের সামনেই ইটবৃষ্টি, বাইক ভাঙচুর হয় বলে অভিযোগ। আহত বেশ কয়েকজন। অভিযোগ, গতকাল রাতে অধিকাংশ গাড়িরই কাচ ভেঙে দেয় তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। থানায় অভিযোগ না নেওয়ায় সকালে রাস্তা অবরোধ করেন গাড়ি মালিকরা। এরপরই স্থানীয় বাসিন্দাদের সঙ্গে গাড়ি মালিকদের বচসা বেধে যায়। পুলিশের সামনেই দু’পক্ষের মধ্যে ইটবৃষ্টি শুরু হয়। এলাকায় উত্তেজনা থাকায় মোতায়েন করা হয়েছে বিশাল পুলিশবাহিনী।

অন্যদিকে, ভোটের ফলাফল ঘোষণার পর বিরোধীদের উপর নেমে আসা শাসকের আক্রমণের বিরুদ্ধে সোমবারই রাজভবনে গেলেন সিপিএম ও কংগ্রেস৷ রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীর সঙ্গে দেখা করে তাঁকে ডেপুটেসন দেন সিপিএম রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র ও কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরী৷ পরে সাংবাদিকদের তাঁরা জানান, ভোটে ভড়াডুবির পর জোটের ভবিষ্যৎ নিয়ে প্রশ্ন উঠলেও তাঁরা জোট ভাঙ্গছেন না৷ কারণ হিসাবে সূর্যকান্ত মিশ্র মিশ্র জানিয়েছেন, ‘মানুষের জোটের স্বার্থেই’ এই জোট৷ এমনকি আগামী ২৭ তারিখ নতুন মন্ত্রিসভার শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানেও যে তাঁরা উপস্থিত থাকছেন না, সেকথাও জানান সিপিএম রাজ্য সম্পাদক৷

----
--