সেলুন-ট্যুরিজ্যমকে হিট করতে বাঙালির ‘দীপুদা’তেই ভরসা

দেবযানী সরকার, কলকাতা: চলতি বছরের মার্চ মাসেই সেলুন কারের দরজা খুলেছিল জন সাধারণের জন্য৷ এবার পুজোকে সামনে রেখে সেলুন কারে জনপ্রিয়তা বাড়াতে চাইছে ইন্ডিয়ান রেলওয়ে ক্যাটারিং অ্যান্ড ট্যুরিজম কর্পোরেশন লিমিটেড (আইআরসিটিসি)। পর্যটন কেন্দ্রগুলিতে দু-দিনের প্যাকেজে সেলুন কার ভাড়া দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা৷

এতদিন রেলের উচ্চপদস্থ আধিকারিক থেকে মন্ত্রী বা বিশেষ কোনও ব্যক্তি চাইলে রাজকীয় রেল সফর করতে পারতেন৷ এবার টাকা ঢাললে আমজনতাও সেই সুযোগ পাবেন৷ সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গ থেকে এক বাঙালি সপরিবারে কলকাতা থেকে দিল্লি গিয়েছেন সেলুন কারে৷ আর তাতেই অক্সিজেন পেয়েছেন আইআরসিটিসির কর্তারা৷ দুর্গাপুজোর বাজার ধরতে তাই সেলুন কারকে ব্র্যান্ডিং করতে চলেছে তারা৷

কী রয়েছে সেলুন কারে?
সেলুন কারের এক একটি কামরায় থাকবে ২টি বেডরুম। সঙ্গে থাকবে টিভি ও কিচেনের ব্যবস্থা। দু’টি শোয়ার ঘরের সঙ্গেই থাকবে বাথরুম। এছাড়া থাকবে মালপত্র রাখার জায়গা ও একটি টেবিল। থাকবে একটি ড্রইংরুম। সেখানে থাকবে আরামদায়ক আসবাব। একটি সারভেন্ট রুমও থাকবে৷ এই রুমটি ছাড়া পুরোটাই শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত হবে৷ চাইলে নিজেরা রান্না করে খাওয়া যাবে৷ থাকবে একজন অ্যাটেনডেন্সও৷ রেল কর্তাদের কথায়, থ্রি-স্টার হোটেলের আমেজ পাওয়া যাবে৷

- Advertisement -

আইআরসিটিসি’র গ্রুপ জেনারেল ম্যানেজার (ইস্ট জোন) দেবাশিস চন্দ্র বলেন, “জনপ্রিয় ট্যুরিস্ট স্টেশনগুলি যেমন দীঘা, পুরী, দার্জিলিং, ডুয়ার্স, আরাকু, রাঁচি, দিল্লি, মুম্বইয়ে আমরা সেলুন কার পাঠানোর কথা ভাবছি৷ দু-দিনের প্যাকেজে ২-৩ লক্ষ টাকা খরচ পড়বে৷ খাওয়া খরচ আলাদা৷ দূরত্বের উপর টাকার অঙ্ক বাড়বে-কমবে৷ সেলুন কার-এ একবার চেপে বসলে মনে হবে নিজের বাড়িতেই আছি৷ শুধু ফ্যামিলি নয় বিজনেস ট্যুরও করতে পারে৷

কেউ যদি মনে করেন তিনি শুধু যাওয়া বা আসার জন্য বুক করবেন তাহলে তাঁকে একপিঠের সফরের ভাড়া দিলে চলবে না৷
সেই যাত্রীকে যাওয়া-আসা অর্থাৎ রাউন্ড ট্রিপের ভাড়া দিতে হবে৷ দেবাশিস চন্দ্র জানান, পুজোর পরে উইকএন্ডে এটাকে প্রোজেক্ট করার চেষ্টা করছেন তাঁরা৷ তিনি আরও বলেন, রেলওয়ে বোর্ডের কাছ থেকে আমরা অনুমতি নিয়েছি ফুল ক্যাপাসিটি কোচের পর সেলুন কার লাগানোর জন্য৷ চলতি সপ্তাহেই পূর্ব রেল ও দক্ষিণ-পূর্ব রেলকে চিঠি দিয়ে বিষয়টি জানাবে আইআরসিটিসি৷

Advertisement ---
---
-----