লাল-হলুদকে উড়িয়ে সুপার কাপে চ্যাম্পিয়ন বেঙ্গালুরু

ভুবনেশ্বর: ইস্টবেঙ্গলকে হারিয়ে সুপার কাপ ফাইনাল জিতল বেঙ্গালুরু এফসি৷ সেমিফাইনালের মতো ফাইনালেও পিছিয়ে থেকে ৪-১ গোলে জয় পেল সুনীল অ্যান্ড কোং৷ এটাই চলতি মরশুমের বেঙ্গালুরুর প্রথম ট্রফি৷ সুপার কাপের প্রথম বছরেই চ্যাম্পিয়ন হয়ে চেন্নাইয়ান এফ সি’র কাছে আইএসএল ফাইনাল হারের জ্বালা জুড়ল মিকু-সুনীলরা৷ এই নিয়ে পাঁচ বছরে পাঁচটি ট্রফি ঘরে তুললে সুনীলরা৷ ২০১৪,২০১৬ সালে আই লিগ জয় ছাড়াও বেঙ্গালুরুর ক্যাবিনেটে রয়েছে ২০১৫ ও ২০১৭-র ফেডারেশন কাপ৷ অন্য দিকে সুপার কাপের ফাইনালে হারের ফলে ২০১২-র পর কোনও জাতীয় ট্রফি নেই ইস্টবেঙ্গলে৷

দিনের শুরুতে অবশ্য বেঙ্গালুরুকে চাপে ফেলে দেয় লাল-হলুদ ব্রিগেড৷ প্রথমার্ধে কাতসুমির কর্ণার থেকে গোল পান ক্রোমা৷ বেঙ্গালুরু গোলকিপার গুরপ্রীত কাতসুমির কর্ণার ফিস্ট করে বক্সের বাইরে বার করে দেওয়ার চেষ্টা করলে ফিরতি বলে ব্যাকভলিতে গোল করেন লাল-হলুদের লাইবেরিয়ান মিডিও৷ এটাই সুপার কাপের ক্রোমার প্রথম গোল৷ এর আগে ম্যাচের শুরুর ৯ মিনিটে বেঙ্গালুরুর গোলরক্ষক গুরপ্রীত, গোল বাঁচাতে গিয়ে বক্সের বাইরে ক্রোমার গায়ে পা তুলে দেন৷ সেযাত্রায় অবশ্য নিশ্চিত লাল কার্ড থেকে রক্ষা পান গুরপ্রীত৷ রেফারি অবশ্য হলুদ কার্ড দেখিয়েই তাঁকে ছেড়ে দেন৷

প্রথমার্ধে ১-০ লিড অবশ্য বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পারেনি ইস্টবেঙ্গল৷ ৩৯ মিনিটে কর্ণার থেকে রাহুল ভেকের হেডে সমতায় ফেরে বেঙ্গালুরু৷ প্রথমার্ধ শেষ হয় ১-১ ব্যবধানে৷ প্রথমার্ধের অতিরিক্ত সময়ে শুভাশিষ বোসকে মুখে পাঞ্চ মেরে লাল কার্ড দেখে মাঠে ছাড়ে ইস্টবেঙ্গলের সামাদ আলি মল্লিক৷

দ্বিতীয়ার্ধে দশ জনের ইস্টবেঙ্গেলর বিরুদ্ধে এরপর ওয়ান ওয়ে ট্রাফিকে ম্যাচ জেতে সুনীলরা! একতরফা ম্যাচে আধিপত্য দেখিয়ে দ্বিতীয়ার্ধে তিনটি গোল করে বেঙ্গালুরু৷ বাগানের বিরুদ্ধে সেমিফাইনালেও দ্বিতীয়ার্ধে তিনটি গোল করেছিল মিকুরা৷

এদিন ৬৯ মিনিটে ইস্টবেঙ্গলের বক্সে গুরবিন্দর হ্যান্ডবল করলে পেনাল্টি পায় ব্লু-আর্মি৷ সহজ সুযোগ কাজে লাগিয়ে স্কোরলাইন ২-১ করে অধিনায়ক সুনীল৷ দু’মিনিটের মধ্যেই দুরপাল্লার শটে ব্যবধান বাড়ান মিকু৷ ৭১ মিনিটে ভিক্টরের পাস থেকে বিশ্বমানের গোলে বেঙ্গালুরুকে এগিয়ে দেন মিকু৷ ৮৯ মিনিটে ইস্টবেঙ্গেলের কফিনে শেষে পেরেক পুঁতে দেন সুনীল৷ টুর্নামেন্টে ৬টি গোল করে ধারাবাহিক পারফরম্যান্সের জন্য সুপার কাপের সেরা হয়েছে বেঙ্গালুরুর ভেনেজুয়েলার স্ট্রাইকার মিকু৷

----
-----