সুনীলের জোড়া গোলে এএফসির শেষ আটে বেঙ্গালুরু

হংকং: ফেড কাপ জয়ী মোহনবাগান না পারলেও আইলিগ জয়ী বেঙ্গালুরু এফসি পারল৷ বুধবার হংকংয়ের কিটচি এফসি কে ৩-২ গোলে হারিয়ে এএফসি কাপের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে গেলেন সুনীল ছেত্রীরা৷ ইস্টবেঙ্গল, ডেম্পোর পর তৃতীয় দল হিসেবে এই কৃতিত্ব অর্জন করল তাঁরা৷ এদিন দলের হয়ে জোড়া গোল করেন ভারত অধিনায়ক সুনীল ছেত্রী৷ অপর গোলটি লালহিমপুইয়ার৷

বুধবার ম্যাচের শুরুতেই অবশ্য পিছিয়ে পড়েছিল বেঙ্গালুরু৷ ম্যাচের সাত মিনিটে লি কউন ইয়ের ক্রস থেকে দুরন্ত হেডে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন রুফিনো৷ এই নিয়ে সাত ম্যাচে ছ’গোল করে ফেললেন তিনি৷ গোল খাওয়ার পর অবশ্য ধীরে ধীরে খেলায় ফিরে আসে আইলিগ চ্যাম্পিয়নরা৷ ৩০ মিনিটে বক্সের মধ্যে কিটচের একজন ফুটবলার ইউজিনসন লিংডোকে ফাউল করলে পেনাল্টি পায় বেঙ্গালুরু৷ যা থেকে বিখ্যাত পেনেকা শটে গোল করে যান সুনীল ছেত্রী৷ দলকে সমতায় ফেরানোর দু’মিনিট পর আরও একটি গোল করেন তিনি৷ রিনো অ্যান্টোর ক্রস থেকে অসাধারণ ভলিতে দলকে এগিয়ে দেন তিনি৷ কিন্তু বেঙ্গালুরুর এই লিডটি বেশিক্ষণ স্থায়ী হয়নি৷ ৪২ মিনিটে ক্রিশ্চিয়ান ট্যারেস কিটচি এফসিকে সমতায় ফেরান৷ এরপর প্রথমার্ধে আর কোনও গোল হয়নি৷ ফলে প্রথম ৪৫ মিনিট পর খেলার ফলাফল ছিল ২-২৷

দ্বিতীয়ার্ধে দু’দলই জয়ের জন্য মরিয়া ফুটবল খেলতে থাকে৷ তবে শেষ পর্যন্ত বাজিমাত করে বেঙ্গালুরুর খেলোয়াড়রাই৷ কারণ দ্বিতীয়ার্ধ শুরুর ছ’মিনিটের মাথায় লালহিমপুইয়ার গোলে এগিয়ে যান সুনীলরা৷ বিপক্ষ রক্ষণের ভুলে গোল করে যান পাহাড়ি খেলোয়াড়টি৷ এরপর ৭০ মিনিটে নিজের হ্যাটট্রিক সম্পন্ন করার সুযোগ হাতছাড়া করেন সুনীল ছেত্রী৷ উল্টোদিকে, নিজেদের ঘরের মাঠে কিটচিও ম্যাচে ফেরার একাধিক সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারেনি৷ ফলে শেষ আটে উঠে যায় বেঙ্গালুরু৷
মোহনবাগান কর্তারা যেখানে জুলাইতে খেলোয়াড় না থাকায় এএফসি কাপের কোয়ার্টারে খেলা নিয়ে উদাসীন ছিলেন সেখানে বেঙ্গালুরু কর্তারা জানিয়ে দিয়েছিলেন দল শেষ আটে উঠলে পরের ম্যাচের জন্য আইএসএল ফ্র্যাঞ্চাইজির কাছ থেকে দলের খেলোয়াড়দের লোনে নেওয়া হবে৷

----
-----