স্টাফ রিপোর্টার, হাওড়া: বন্যা কবলিত কেরলে তিনদিন আগে থেকেই ত্রাণ বিতরণ শুরু করেছিল ভারত সেবাশ্রম সংঘ৷ কোজিকোড় জেলায় গত তিন ধরে পাঠানো হচ্ছিল যাবতীয় শুকনো খাবার৷ তবে এবার কেরলের কোজিকোড় ও ওয়েনাদ দুই জেলায় কয়েক হাজার মানুষকে রান্না করে পাঠানোর ব্যবস্থা করল ভারত সেবাশ্রম সংঘ৷

কয়েকদিনের টানা বৃষ্টির জেরে কেরলের কোচি বিমান বন্দর জলমগ্ন। বিভিন্ন এলাকায় বিচ্ছিন্ন ট্রেন যোগাযোগও৷ তাই বন্যা কবলিতদের কোজিকোড় জেলার পুঝিমুদি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বড় ক্যাম্প করে ত্রাণ দেওয়া হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। এছাড়া কোট্টাতারা, ভিত্রি তালুক, কাপ্পু মন্ডম, বেলা ওন্না সহ বিভিন্ন এলাকায় কয়েকলক্ষ মানুষ জলবন্দী। এই সব এলাকায় দুর্গত মানুষদের উদ্ধারের কাজ চলছে৷ পাশাপাশি তাঁদের শুকনো খাবার ও রান্না করা খাবার বিতরণ শুরু করেছে ভারত সেবাশ্রম সংঘের সন্ন্যাসী ও স্বেচ্ছাসেবকরা।

Advertisement

ভারত সেবাশ্রম সংঘের প্রধান সম্পাদক স্বামী বিশ্বাত্মানন্দ মহারাজ বলেন, ‘‘কলকাতা ছাড়াও হায়দরাবাদ, ত্রিবান্দম ও কন্যাকুমারী ভারত সেবাশ্রম সংঘ থেকে শুকনো খাবার বন্যা কবলিত এলাকায় পাঠানো হয়েছে। কোজিকোড় জেলার পাওলি সরকারি স্কুলে রান্নার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। সেখান থেকে রান্না করা খাবার নৌকোয় করে নিয়ে গিয়ে কোজিকোড় জেলার বিভিন্ন গ্রামে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে৷ সেই সঙ্গে এই এলাকা থেকে ৪০ কিলোমিটার দূরে ওয়েনাড জেলার গ্রামগুলিতেও রান্না করা খাবার পৌঁছে দেওয়ার কাজ চলছে। পাশাপাশি, বন্যা কবলিত মানুষদের প্রয়োজনীয় জামা-কাপড়ও বিতরণ চলছে।’’

তিনি আরও জানান, তিনি নিজে হায়দরাবাদ থেকে খাদ্য সামগ্রী ঘটনাস্থলে পাঠানোর কাজ তদারকি করছেন। একমাত্র ভারত সেবাশ্রমই প্রথম বাড়ি বাড়ি জলবন্দী মানুষদের রান্না করা খাবার পৌঁছে দেওয়ার কাজ শুরু করেছে। যতদিন না বন্যার জল কমে ততদিন এই কাজ চলবে। সমস্ত প্রতিকূলতাকে অতিক্রম করে এত দ্রুত দুর্গত মানুষদের কাছে ত্রাণ পৌঁছে দেওয়ায় ভারত সেবাশ্রম সংঘের সন্ন্যাসী ও স্বেচ্ছাসেবকদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন কেরলের রাজ্য সরকার। তাঁরাও সবরকম সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন ভারত সেবাশ্রমের স্বেচ্ছাসেবকদের।

----
--