ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ প্রধান শিক্ষক সহ স্কুলের ১৮ জনের বিরুদ্ধে

পাটনা: প্রথমে সহপাঠীদের হাতে গণধর্ষণ৷ পরে দুই স্কুল শিক্ষক ও প্রধান শিক্ষকের কাছে যৌন নিগ্রহের শিকার হতে হয় নবম শ্রেণির ছাত্রীকে৷ আট মাস ধরে লাগাতার চলে এই অত্যাচার৷ শুক্রবার সেই নারকীয় অত্যাচারের কাহিনী এলো সামনে৷

ঘটনাটি বিহারের সরন জেলার পরসাগর গ্রামের৷ পুলিশের কাছে অভিযোগে ওই ছাত্রী জানিয়েছেন, এতদিন লোকলজ্জার ভয়ে সে চুপ ছিল৷ তাছাড়া অভিযুক্তরা ধর্ষণের ভিডিও করে রাখে৷ সেই ভিডিও ভাইরাল করে দেখার ভয় দেখিয়ে প্রধান শিক্ষক সহ দুই স্কুল শিক্ষক ও অন্যান্য সহপাঠীরা তাকে গণধর্ষণ করে৷

তদন্তে নেমে পুলিশ ইতিমধ্যে ওই প্রাইভেট স্কুলের প্রধান শিক্ষক উদয় কুমার ওরফে মুকুন্দ সিং, শিক্ষক বালাজী এবং দুই নাবালককে গ্রেফতার করেছে৷ বাকিদের খোঁজে তল্লাশি শুরু হয়েছে৷ নিগৃহীতার এদিনই মেডিক্যাল পরীক্ষা হয়েছে৷

- Advertisement -

এফআইআর অনুযায়ী, ২০১৭ সালের ডিসেম্বর মাসে স্কুল শৌচালয়ের সামনে তিন ছাত্র মিলে ওই ছাত্রীকে প্রথমবার গণধর্ষণ করে৷ সেই ঘটনার ভিডিও করে রাখে অভিযুক্তরা৷ সেই সঙ্গে ভয় দেখায় মুখ খুললেই ফাঁস করে দেওয়া হবে ভিডিওটি৷ কিন্তু কিছুদিন পরই সেই ভিডিও আরও কিছু পড়ুয়ার কাছে পৌঁছে যায়৷

এই ভাবে স্কুলের দুই শিক্ষক ও প্রধান শিক্ষকের কাছে পৌঁছে যায় ভিডিও ক্লিপিংটি৷ পুলিশ সুপার জানিয়েছেন, ওই ভিডিওর ভয় দেখিয়ে ছাত্রীকে ধর্ষণ করে স্কুলের দুই শিক্ষক৷ সমাজের ভয়ে সব কিছু চুপচাপ সহ্য করে নেয় সে৷ কিন্তু একদিন সহ্য করতে না পেরে স্কুলের প্রধান শিক্ষককে গোটা ঘটনাটি জানাতে যায়৷ কিন্তু সাহায্যের বদলে স্কুলের বদনামের ভয় দেখিয়ে তাকে চুপ করে থাকতে বলে৷ উপরন্তু একদিন ওই মেয়েটিকে নিজের ঘরে ডেকে ধর্ষণ করে প্রধান শিক্ষক৷

পুলিশের কাছে অভিযোগে ওই ১৮ জনের নাম বলেছে নিগৃহীতা৷ অভিযোগের ভিত্তিতে ডিএসপির নেতৃত্বে বিশেষ দল গঠন করা হয়েছে৷ তারাই এই গণধর্ষণের তদন্ত শুরু করেছে৷

Advertisement
---