আগরতলা : নিজের হাস্যকর মন্তব্যের জন্য অনেকদিন ধরেই সংবাদ শিরোনামে ছিলেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব৷ সেই তালিকায় নয়া সংযোজন করলেন নিজেই৷ ফের একবার অদ্ভুত কিছু বক্তব্য সামনে নিয়ে এলেন তিনি৷

তাঁর এবারের মন্তব্য হাঁস নিয়ে৷ তাঁর মতে হাঁস নাকি জলে অক্সিজেনের পরিমাণ বাড়ায়! ফলে মাছচাষে সুবিধা হয়৷ মাছের বংশবৃদ্ধিও নাকি তাতেই হয়৷ তিনি বলেছেন হাঁস যখন জলে সাঁতার কাটে, তখন জলের অক্সিজেনের মাত্রা বৃদ্ধি করে৷ বেশি অক্সিজেন পেয়ে মাছের সংখ্যাও বাড়ে!

Advertisement

ত্রিপুরার রুদ্রসাগরে ঐতিহ্যবাহী একটি নৌকা প্রতিযোগিতায় গিয়ে সোমবার বিকেলে এই মন্তব্য আসে বিপ্লব দেবের কাছ থেকে৷ তিনি এও ঘোষণা করেন যে মাছচাষ বাড়াতে তিনি মৎস্যজীবীদের ৫০ হাজার সাদা ক্ষুদে হাঁস উপহার দেবেন৷ শুধু জলে অক্সিজেন বাড়ানোই নয়, হাঁস নাকি যখন সাঁতার কাটে, তখন জল পরিশোধনও করে! তবে হাঁসের গুণাবলীর বর্ণনা এখানেই শেষ করেননি বিপ্লব দেব৷

তিনি বলেন ছোট ছোট বাচ্চারাও হাঁসের কাছ থেকে উপকার পায়৷ প্রতিটি পরিবারের কাছে হাঁস আশীর্বাদ৷ প্রোটিম ভিটামিনের আঁতুড়ঘর নাকি হাঁস৷ হাঁস পালন প্রতিটি বাড়িতে আগে দেখা যেত৷ কিন্তু গত ২৫ বছরে সেই সংস্কৃতি আর নেই৷

স্বভাবতই মুখ্যমন্ত্রীর এই বক্তব্যে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে৷ বিশেষজ্ঞরা রীতিমতো সমালোচনা করেছেন এই মন্তব্যের৷ প্রাণীবিদ্যার প্রাক্তন অধ্যাপক জ্যোতিপ্রকাশ রায় চৌধুরি বলেন মেশিনের সাহায্যে জলে অক্সিজেনের মাত্রা বাড়ানো সম্ভব৷ কিন্তু হাঁসের সাঁতার কাটার সঙ্গে জলে অক্সিজেন বাড়ার কোনও সম্পর্ক নেই৷ এমনকি মাছের সংখ্যাবৃদ্ধির সঙ্গেও হাঁসের কোনও যোগ নেই৷ এর আগেও বিপ্লব দেবের মন্তব্য সাড়া ফেলেছিল সংবাদমাধ্যমে৷ কিছুদিন আগেই, পঞ্চাশ বছর পূর্তি মানে ‘সিলভার জুবিলি’ ৷ আগেও বলেছেন- মহাভারতের সময় ইন্টারনেট ছিল৷ গৌতম বুদ্ধ হেঁটে গিয়েছেন চিনে, জাপানে এসব বলে তীব্র সমালোচিত হয়েছেন৷

----
--