চিরঞ্জিৎ ঘোষ, বহরমপুর: অধীরের জেলায় তৃতীয় শক্তি হিসাবে উঠে এল বিজেপি৷ ধীর লয়ে হলেও গেরুয়া শিবির ডানা মেলেছে নবাবের শহরে৷ স্বভাবতই খুশির হাওয়া মুর্শিদাবাদে৷

একসময় কংগ্রেসের গড় ছিল এই জেলা৷ অধীররঞ্জন চৌধুরির দুর্ভেদ্য ঘাঁটি৷ কিন্তু গত পঞ্চায়েত ভোটেই সেই গড়ে থাবা বসায় ঘাসফুল৷ জেলাজুড়ে শুধুই তৃণমূলের জয়জয়কার৷ বিধানসভা ভোটেই স্পষ্ট হতে শুরু করে এ জেলায় কংগ্রেসের শেষের দিন শুরু৷

- Advertisement -

আরও পড়ুন: বহু জায়গায় বিজেপি কর্মীদের বাড়িতে ভাঙচুর

এবার মুর্শিদাবাদে হাত-পা মেলছে বিজেপিও৷ বামেদের পিছনে ফেলে তৃতীয় স্থানে উঠে এসেছে দল৷ এই ফলাফল দলকে জেলায় আরও চাঙ্গা করবে বলে জেলা নেতৃত্বর দাবি৷ বিজেপির মুর্শিদাবাদ জেলা সভাপতি গৌরীশঙ্কর ঘোষ বলেন, ‘‘মনোনয়নপর্বে শাসকদল খুন, সন্ত্রাস না করলে জেলায় দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসত বিজেপি৷’’

গৌরীশঙ্করবাবুর দাবি, যেখানে তৃণমূলের সন্ত্রাসকে রোখা গিয়েছে, সেসব জায়গায় ভাল ফল করেছে বিজেপি৷ তিনি বলেন, একদিকে তৃণমূল দাঁপিয়ে বেড়িয়েছে৷ অন্যদিকে পুলিশের সন্ত্রাস৷ তবু রোখা যায়নি বিজেপিকে৷ রাজ্যে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে বিজেপি৷ এ রাজ্যে মুখ্যমন্ত্রী যে উন্নয়ন করেছেন তা মানুষ বুঝে গিয়েছেন৷ তাই বিকল্প হিসাবে রাজ্যবাসী বিজেপিকেই চাইছেন, জানান গৌরীশঙ্কর ঘোষ৷

আরও পড়ুন: ভোটের হিংসার বলি তৃণমূলের জয়ী প্রার্থী

তিনি বলেন, জেলায় শাসকদলকে রুখতে মানুষ ভারতীয় জনতা পাটির দিকে ঝুঁকতে চাইছেন৷ আগামী লোকসভা ভোটে কেন্দ্রীয়বাহিনী দিয়ে ভোট হবে৷ রাজ্যের ৪২টি আসনের মধ্যে বিজেপি প্রায় ২৫টি আসনেই জিতবে৷ পঞ্চায়েত ভোটের ফল তারই ইঙ্গিত দিচ্ছে বলে মনে করছেন বিজেপি নেতৃত্ব৷

----