‘অলোক বার্মার থেকেও কেঁদে ভাসাচ্ছেন রাহুল গান্ধী’

নয়াদিল্লি: সিবিআই অধিকর্তা পদে অলোক বার্মার প্রত্যাবর্তন দীর্ঘস্থায়ী হল না৷ মাত্র ৩৩ ঘণ্টা বহাল ছিলেন সিবিআই ডিরেক্টর পদে৷ উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন নিয়োগ কমিটির সিদ্ধান্তে ফের পদ খোয়ালেন অলোক বার্মা৷ যথারীতি বিজেপির সমালোচনায় কোমর বেঁধে নেমেছে কংগ্রেস৷ পাল্টা খোঁচা বিজেপিরও৷ জানিয়েছে, অলোক বার্মার থেকেও কেঁদে ভাসাচ্ছেন রাহুল গান্ধী৷

শুক্রবার বিজেপি নেতা জিভিএল নরসিংহ রাও কংগ্রেসের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন৷ অভিযোগ, সিবিআইয়ের আভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলাচ্ছে কংগ্রেস৷ সংবাদসংস্থা এএনআইকে তিনি বলেন, অগস্তা ওয়েস্টল্যান্ড চপার দুর্নীতি সহ অন্যান্য প্রতিরক্ষা চুক্তির ক্ষেত্রে দুর্নীতির তদন্ত করছে সিবিআই৷ সেই দুর্নীতি সিবিআই যাতে ফাঁস করে দিতে না পারে তার জন্য কংগ্রেস চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে৷ তাই সিবিআইয়ের এই আভ্যন্তরীণ বিষয়ে নাক গলিয়ে সব তালগোল পাকাতে চাইছে কংগ্রেস৷ নইলে অলোক বার্মা তাঁর অপসারণ নিয়ে এত সোচ্চার হননি যতটা রাহুল গান্ধী চিৎকার চেঁচামেঁচি করছেন এবং কেঁদে ভাসাচ্ছেন৷

- Advertisement -

রাহুলকে তোপ দাগার কারণ, উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন নিয়োগ কমিটির তিন সদস্যের মধ্যে দু’জন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও সুপ্রিম কোর্টে প্রবীণ বিচারপতি এ কে সিক্রি অলোক বার্মার অপসারণের পক্ষে সায় দেন৷ নিয়োগ কমিটির তৃতীয় সদস্য বিরোধী দলনেতা মল্লিকার্জুন খাড়গে এর বিরোধীতা করেন৷ তারপর ট্যুইটারে সরব হন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী৷ লেখেন, মোদীর মধ্যে ভয় ঢুকে গিয়েছে৷ তিনি এখন ঘুমাতে পারছেন না৷ অনিল আম্বানিকে ৩০ হাজার কোটি টাকা উপহার দিয়েছেন মোদী৷ সেই তদন্ত যাতে অলোক বামা করতে না পারেন তার জন্য দ্বিতীয়বার তাঁকে সরিয়ে দেওয়া হল৷

অলোক বার্মার অপসারণ নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিরোধী দলনেতা মল্লিকার্জুন খাড়গে৷ একটি নোট লিখে তিনি দাবি করেন, সেন্ট্রাল ভিজিল্যান্স কমিটির রিপোর্টে এমন কিছু উঠে আসেনি যার জন্য বার্মাকে সিবিআই প্রধানের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়৷ সেই নোটটি তিনি সুপ্রিম কোর্টে জমা দিয়েছেন৷