বিহারে এনডিএ জোট নিয়ে চাপে বিজেপি

পাটনা: দেশ জুড়ে মোদী ঝড় ঠেকাতে জোট বাঁধতে চলেছে একাধিক বিরোধী দল। এরই মাঝে শরিক দলের চাপের মুখে পড়তে হল বিজেপি-কে। ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে বিহারে আসন সমঝোতা নিয়ে জটিলতা বাড়ছে বিজেপি এবং জেডি(ইউ)-র মধ্যে।

বিহারে ৪০টি লোকসভা আসন রয়েছে। এনডিএ জোট হিসেবে বিজেপি এবং জেডি(ইউ) কে কতগুলি আসনে লড়াই করবে তা নিয়ে ক্রমশ বাড়ছে জটিলতা। ২৫টি আসনে প্রার্থী দিতে আগ্রহী জেডি(ইউ)। যদিও বিজেপি-র পক্ষ থেকে আসন সংখ্যা নিয়ে এখনও কোনও মন্তব্য পাওয়া যায়নি।

আরও পড়ুন- যোগ দিবস এড়িয়ে জোট জল্পনা বাড়ালেন নীতিশ

- Advertisement -

লোকসভা নির্বাচনে বিহারে মাত্র ১৫টি আসনে যে লড়াই করতে বিজেপি রাজি নয় তা বুঝেছে জেডি(ইউ)। সেই কারণেই বিজেপি-কে একলা চলার রাস্তা ছেড়ে দিতে চাইছে জেডি(ইউ)। দলের রাজ্য মুখপাত্র সঞ্জয় সিং বলেছেন, “জোট করে লড়াই করতে না চাইলে বিজেপি একাই রাজ্যের ৪০ আসনে প্রার্থী দিতে পারে। কেউ আটকাবে না।” একই সঙ্গে তিনি আরও বলেছেন, “সব রাজনৈতিক দলের নিজস্ব সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার রয়েছে। বিজেপি চাইলে নিজেদের সিদ্ধান্ত নিতেই পারে। এতে আমাদের কোনও সমস্যা নেই।”

বিহারে এনডিএ জোটের মুখ হচ্ছেন নীতিশ কুমার। চলতি মাসের শুরুর দিকে এমনই মন্তব্য করেছিলেন জেডি(ইউ) নেতা অজয় অলোক। নীতিশের নেতৃত্বে জেডি(ইউ) সমগ্র বিহারে বেশ সক্রিয় হয়েছে বলে দাবি করেছেন মুখপাত্র সঞ্জয় সিং। তিনি বলেছেন, “আমাদের কর্মীরা সব জেলায় সক্রিয় রয়েছে। ভোট নিয়ে আমরা চিন্তা করছি না।”

আরও পড়ুন- মোদী বিরোধী জোটে নীতিশকে পেতে আগ্রহী কংগ্রেস

বর্তমান পরিস্থিতিতে শরিকেরাই ভরসা মোদী-শাহের। যাদের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে বিহারের জেডি(ইউ)। ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের সময়ে বিহারের এই রাজনৈতিক দল এনডিএ থেকে বেরিয়ে আসে। ২০১৫ সালে চির প্রতিদ্বন্দ্বী লালু প্রসাদের আরজেডি-র সঙ্গে জোট করে লড়াই করে ক্ষমতা দখল করে। দুই বছরের মধ্যে সেই জোট ভেঙে যায় এবং ফের এনডিএ-তেই ফিরে যান নীতিশ কুমার।

২০১৪ সালের লোকসভা সালের লোকসভা নির্বাচনে গেরুয়া ঝড় উঠেছিল। মোদী মন্ত্রে কেঁপেছিল গোটা দেশ। কিন্তু চার বছরে বদলে গিয়েছে সেই ছবিটা। ফিকে হয়েছে মোদী হাওয়া। একক দল হিসেবে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়া যে কার্যত অসম্ভব তা প্রায় মেনেই নিয়েছে পদ্ম শিবির।

আরও পড়ুন- লোকসভায় মোদীর বড় ভরসা নীতিশ

এই বিষয়ে জেডি(ইউ) মুখপাত্র সঞ্জয় সিং বলেছেন, “২০১৪ এবং ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের মধ্যে অনেক ফারাক রয়েছে। পাঁচ বছরে অনেক কিছু ঘটে গিয়েছে সমগ্র দেশে।” নীতিশ কুমার ছাড়া বিহারে বিজেপি বিশেষ কিছুই করতে পারবে না বলে দাবি করেছেন সঞ্জয় সিং।

Advertisement
---