স্বপ্নের ‘রথযাত্রা’র প্রস্তুতিতে কোমর বাঁধছে বিজেপি

স্টাফ রিপোর্টার, হুগলি: আগে একবার দিনক্ষণ ঠিক করেও বাতিল করা হয়েছিল বিজেপির স্বপ্নের ‘রথযাত্রা’৷ এবার এই রথযাত্রার জোর কদমে প্রস্তুতি পর্ব শুরু হয়েছে জেলায় জেলায়৷

বুধবার সকাল থেকেই হুগলি জেলা বিজেপির ওবিসি মোর্চার নেমে পড়ল মিছিলে৷ এই মিছিল চুঁচুড়ার পিপুলপাতি থেকে শুরু হয়৷ শেষ হয় চুঁচুড়া ঘড়ির মোড়ে৷ এদিন প্রায় ৫০০ কর্মী এই মিছিলে অংশ নেয়৷ উপস্থিত ছিলেন ওবিসি মোর্চা সভাপতি স্বপন পাল, রাজ্য সহ সভাপতি রাজ কমল পাঠক সহ জেলা মণ্ডলের বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ।

বিজেপি এই ‘রথযাত্রা’ প্রস্তুতিতে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে মিটিং মিছিল সভার আয়োজন করছে৷ কারণ বেশি সংখ্যায় মানুষকে যুক্ত করতে চাইছে বিজেপির জেলা ও মণ্ডল স্তরের নেতৃত্বরা৷ তবে এই রথযাত্রাকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক চাপান উতোর শুরু হতে দেরি হয়নি৷ বিজেপির এই প্রস্তুতি কর্মসূচি বাতিল করতে সব রকম ভাবে মাঠে নেমে পড়েছে তৃণমূল৷ তবে সমস্ত পরিস্থিতির মোকাবিলা করতেই হুগলি জেলা বিজেপির ওবিসি মোর্চার এই মিছিল৷

বিজেপি সূত্রে খবর, তিন ধরণের জমায়েত পরিকল্পনা করা হয়েছে৷ (এক) স্বাগতম জমায়েত (দুই) সভা (তিন) জনসভা৷ প্রতিটি জনসভারই নির্দিষ্ট আঙ্গিক রয়েছে৷ এরাজ্যে রথযাত্রা যাঁরা নিয়ন্ত্রণ করবেন, তারা পরিকল্পনার দিকটি খতিয়ে দেখছেন৷ রাজ্য সরকারের থেকে প্রয়োজনীয় অনুমতিও চাওয়া হবে৷ যা ঠিক হয়েছে, স্বাগতম জমায়েতে পাঁচ থেকে ছয় হাজার জনতা হাজির থাকবে৷ নেতারা রথে ওঠার আগে এই জমায়েত করবেন৷ সভাগুলিতে ১০ থেকে ২০ হাজার জনতা উপস্থিত থাকবেন৷ প্রায় ৫০ হাজার মানুষ থাকবেন জনসভাগুলিতে৷

রথে চড়ে রাজ্যের ৪২ টি লোকসভা কেন্দ্রে ঘুরবেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ৷ অমিতের ‘Air Conditioned’ রথ উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের লোকসভা কেন্দ্রগুলিতে তিনটি পর্যায়ে ঘুরবে৷ ডিসেম্বরের ৭, ৯ ও ১৪ তারিখ৷ রাজস্থানের নির্বাচনের জন্য অমিতের পূর্বনির্ধারিত সফর সূচিতে সামান্য বদল করা হলেও বাড়তি পাওনা হিসেবে রাজ্য বিজেপি পেয়েছে এক বড়সড় উপহার৷ এর আগে ঠিক ছিল – শুধু তারাপীঠেই রথে চেপে বসবেন অমিত৷ তবে তাঁর আসতে দেরি হলেও তিন পর্যায়েই বিজেপির রথের উপর অমিত শাহকে হাত নাড়তে দেখা যাবে৷

---- -----