‘মাংস ফেলে রাজ্যে হিংসা ছড়াতে চাইছে বিজেপি’

ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, মেদিনীপুর: ফের প্রশাসনিক বৈঠক থেকে বিজেপি ও সিপিএমকে এক বন্ধনীতে রেখে আক্রমণ তীব্রতর করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷

মেদিনীপুরের প্রশাসনিক বৈঠক থেকে রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধানের অভিযোগ, ‘‘বিজেপি বাজার থেকে মাংস কিনে সেই মাংস মন্দিরের সামনে ফেলে রাজ্যে হিংসা ছড়াতে চাইছে৷’’ এজন্য পুলিশ-প্রশাসনের পাশাপাশি জন প্রতিনিধিদেরও সতর্ক থাকার নির্দেশ দেন তিনি৷

আরও পড়ুন: ৭ বছরে ৬০ বছরের কাজ করেছি: মুখ্যমন্ত্রী

- Advertisement -

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সাফ জানিয়ে দেন, ‘‘কোনও অবস্থাতেই রাজ্যে সাম্প্রদায়িক হিংসা বরদাস্ত করব না৷ রাজ্যের মানুষ শান্তিতে রয়েছে, এটা বিজেপি চাই না৷ তাই পরিকল্পিতভাবেই ওরা গোলমাল পাকাতে চাইছে৷’’ পুলিশ-প্রশাসনের উদ্দেশ্যে মুখ্যমন্ত্রীর পরামর্শ, ‘‘থানার ওসি, ব্লকের বিডিও-রা আরও বেশি সতর্ক থাকুন৷ আরও বেশি করে মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ গড়ে তুলুন৷ যাতে ওরা কোথাও গোলমাল পাকানোর চেষ্টা করলে আপনারা যেন আগাম খবর পেয়ে ব্যবস্থা নিতে পারেন৷’’

এরপরই প্রাক্তন বাম সরকারের তীব্র সমালোচনা করেন মুখ্যমন্ত্রী৷ তাঁর কথায়, ‘‘৩৪ বছরে নিজেরা রাজ্যটাকে লাটে উঠিয়েছে৷ নিজেরা উন্নয়ন তো করেইনি, আমাদেরও উন্নয়নের কাজে নানাভাবে বাধা সৃষ্টি করছে৷’’ এর বিরুদ্ধে জনমত তৈরির জন্য আরও বেশি করে জনমত গঠনের জন্য জন প্রতিনিধিদের নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী৷ কীভাবে গেরুয়া শিবিরের হিংসা রুখতে হবে বৈঠকে জন প্রতিনিধিদের তা বিস্তারিতভাবে জানান রাজ্য প্রশাসনের শীর্ষ আমলারা৷ এই কাজে স্কুল কলেজের পড়ুয়াদেরও আরও বেশি করে সচেতন করার পরামর্শ দেন তাঁরা৷

আরও পড়ুন: লড়াই না করে এক সঙ্গে চলুন, জন প্রতিনিধিদের কড়া বার্তা মমতার

বুধবারও বোলপুরের বৈঠক থেকে একই অভিযোগে সরব হয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী৷ ঘোষণা করেছিলেন, কোথাও হিংসা ছড়ানোর চেষ্টা হচ্ছে৷ সাধারণ মানুষ পুলিশকে আগাম এই খবর পৌঁছে দিলে, খবরের সত্যতা থাকলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে পুরষ্কৃত করা হবে৷

গোয়েন্দা সূত্রের খবর: পঞ্চায়েত ভোটের আগে রাজ্যজুড়ে হিংসা ছড়ানোর প্রক্রিয়া শুরু করেছে গেরুয়া শিবির৷ সেই তথ্য পাওয়ার পরই রাজ্যে শান্তি অক্ষুন্ন রাখতে জেলায় জেলায় প্রশাসনিক বৈঠক থেকে পুলিশ, প্রশাসনের পাশাপাশি জনপ্রতিনিধিদের সতর্ক করতে তৎপর হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷

আরও পড়ুন: ‘ইতিহাসের পাতায় বরণীয় হয়ে থাকবেন মমতা’

Advertisement ---
---
-----