মমতার মাস্ট্রারস্ট্রোক সামাল দিতে পঞ্চায়েতে বিজেপির ‘পান্না’ মডেল

বিশেষ প্রতিবেদন: ত্রিপুরা মডেলে বঙ্গে এবার পঞ্চায়েত নির্বাচন লড়বে গেরুয়া শিবির।

একেবারে বুথের নিম্নস্তরে গিয়ে টোলাভিত্তিক ‘পান্না’ কমিটি গড়ে রাজ্যে পঞ্চায়েতে লড়ার প্রস্তুতি শুরু করেছে গেরুয়া শিবির। ত্রিপুরা বিধানসভা নির্বাচনে এই সাংগঠনিক কাঠামো গড়ে ব্যাপক জয় পাওয়ায় এই রাজ্যের পঞ্চায়েত বৈতরণী পার হতে ত্রিপুরাকেই মডেল করছে বঙ্গ বিজেপি।

আরও পড়ুন: বামেদের সমর্থনে বাজেট পাশ করাল তৃণমূল পরিচালিত পুরসভা

- Advertisement -

ভোটের জন্য এই সাংগঠনিক কাঠামো গড়তে ইতিমধ্যেই নির্দেশ চলে গিয়েছে জেলাগুলিতে। এই ‘পান্না’ কমিটি গঠনের মধ্য থেকেই পরিষ্কার লোকসভা ভোটের আগে পঞ্চায়েত নির্বাচনকে রীতিমতো পাখির চোখ করেছে বঙ্গ বিজেপি।

দলের রাজ্য কমিটির সদস্য তথা পুরুলিয়া জেলা সভাপতি বিদ্যাসাগর চক্রবর্তী বলেন, “ত্রিপুরাতে যেভাবে আমাদের জয় এসেছে সেইভাবে পঞ্চায়েত নির্বাচনে সাফল্য পেতে আমরা ওই রাজ্যের নির্বাচনী কৌশলকেই মডেল করছি। একেবারে বুথের নীচে ‘পান্না’ কমিটি গড়ে পঞ্চায়েতে লড়াই করার নির্দেশ জারি করেছে রাজ্য কমিটি।” সেই নির্দেশ মেনে জেলায়–জেলায় ‘পান্না’ কমিটি গড়ার প্রক্রিয়া চলছে।

আরও পড়ুন: কমিশনের নজিরবিহীন সিদ্ধান্তে স্নায়ুর চাপ বাড়ল অনুব্রত-অধীরের

রাজ্যে মোট বুথের সংখ্যা ৫৮,৪৬৭টি। প্রত্যেকটি বুথে অন্তত চারটি-পাঁচটি করে টোলা আছে। প্রত্যেকটি টোলাতে একটি করে কমিটি গঠনের কাজ হচ্ছে। এই কমিটির মাথায় একজন করে ‘পান্না’ সভাপতি থাকবেন। এছাড়া ওই কমিটিগুলিতে সদস্য থাকবেন চার থেকে পাঁচজন। যাদের লক্ষ্য হবে, ওই টোলার অধিকাংশ ভোট যাতে গেরুয়া শিবিরে পড়ে।

দলের আরেক রাজ্য কমিটির সদস্য তথা পুরুলিয়া জেলা সাধারণ সম্পাদক জ্যোতির্ময় মাহাতো বলেন, “এই ‘পান্না’ কমিটি শুধু রাজনীতি বা ভোট আদায় করবে না। এলাকায় মানুষের সঙ্গে মিশে তাদের সুখ-দুঃখে থাকবে। হাসপাতালে অসুস্থের পাশে দাঁড়ানো, রক্ত দেওয়া, দরিদ্র পরিবারের বিয়ে বাড়িতে সাহায্য করা৷ এমনকী মৃতদেহ দাহ করতে শ্মশানে যাওয়া। যাতে ভোটের সময় ‘পান্না’ কমিটি যা বলবে তাই করবেন তারা।” তবে এই কমিটি গুলি সবই নিয়ন্ত্রণ হবে মন্ডল কমিটির মাধ্যমে।

আরও পড়ুন: নৈহাটির পেপার মিলে দুর্ঘটনা, দু’লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণের আশ্বাস মুখ্যমন্ত্রীর

Advertisement ---
-----