চাকরির টোপ দিয়ে সহবাসের অভিযোগে গ্রেফতার বিজেপির জয়ী প্রার্থী

স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: চাকরি দেওয়ার নাম করে সহবাসের অভিযোগ উঠল বিজেপির জয়ী প্রার্থীর বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত ওই ব্যক্তির নাম অলোক কাহার। গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার বোদাই পঞ্চায়েতের প্রার্থী ছিল সে।

রবিবার বিকেলের দিকে বারাসতের হরিতলা এলাকা থেকে অলোককে গ্রেফতার করে আমডাঙা থানার পুলিশ। অভিযোগকারী তরুণী সল্টলেকের বাসিন্দা বলে দাবি করেছে আমডাঙা থানার পুলিশ।

আরও পড়ুন- আট মাস আগে হয়েছিলেন যৌনহেনস্থার শিকার, আজ পড়ল চার্জশিট জমা

২৮ বছর বয়সী অলোকের বিরুদ্ধে ওঠা যাবতীয় অভিযোগ অস্বীকার করেছে স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব। শুধু তাই নয়, রাজনৈতিক স্বার্থেই মিথ্যা মামলায় অলোক কাহারকে ফাঁসানো হয়েছে বলে দাবি করেছেন বারাকপুর সাংগঠনিক জেলার সভাপতি অহিন্দ্রনাথ বসু। তাঁর কথায়, “পঞ্চায়েত বোর্ড গঠন রুখতে মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো হয়েছে জয়ী প্রার্থী অলোক কাহারকে।”

আরও পড়ুন- রাখী বন্ধন উৎসবের আয়োজন করায় আক্রান্ত বিজেপি নেতা

আমডাঙার বোদাই পঞ্চায়েতের মোট আসন সংখ্যা ১৫টি। যার মধ্যে তৃণমূলের দখলে গিয়েছে পাঁচটি আসন। সিপিএম এবং নির্দলরা পেয়েছে চারটি করে আসন। দু’টি পেয়েছে বিজেপি। সেই দুই জন জয়ী প্রার্থীর একজন হচ্ছে ধৃত অলক কাহার।

নির্দল প্রার্থীদের নিয়ে সব পক্ষই বোর্ড গঠন করতে চাইছিল। জেলা সভাপতি অহিন্দ্রনাথ বসু জানিয়েছেন যে তৃণমূল বিরোধী সিপিএম এবং নির্দল প্রার্থীরা বিজেপিকে সঙ্গে নিয়ে বোদাই পঞ্চায়েত বোর্ড গঠন করতে জোট বেঁধে ছিল। বিষয়টি আঁচ করতে পেরেই মিথ্যা মামলায় অলোক কাহারকে তৃণমূল কংগ্রেস ফাঁসিয়েছে বলে দাবি করেছেন তিনি। এর বিরুদ্ধে বারাকপুরের বিজেপি নেতৃত্ব আন্দোলনে নামবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন- লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়েছে নাগরিক পঞ্জির প্রকৃত উদ্দেশ্য: কংগ্রেস নেতা

যদিও রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। নির্দল প্রার্থীরা তৃণমূলকেই সমর্থন করবে বলে জানিয়েছে ঘাস ফুল শিবির। একই সঙ্গে তাদের আরও দাবি, ‘চাকরির প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাসের মতো মারাত্মক অভিযোগ ঢাকার জন্যেই মিথ্যা মামলার তত্ত্ব দেখাচ্ছে বিজেপি।’

Advertisement
----
-----