বিস্ফোরণে উড়ল কাঁকরতলার তৃণমূল দফতর

স্টাফ রিপোর্টার, সিউড়ি: বীরভূমের কাঁকরতলায় তৃণমূল অঞ্চল কার্যালয়ে বিষ্ফোরণ৷ বিষ্ফোরণের তীব্রতায় উড়ে যায় দলীয় দফতরে ছাদ৷ ঘরের জানালা, দরজা তৃণমূল কার্যালয়ের বাইরে রাস্তার ধারে গিয়ে পড়ে৷ গোটা এলাকা ধোঁয়ায় ঢেকে যায়৷ প্রাথমিক অনুমান, ওই তৃণমূল কার্যালয়ে বোমা মজুত ছিল৷ সেই বোমা ফেটেই এই ঘটনা ঘটেছে৷

বিষ্ফোরণের বিকট শব্দে বড়রা গ্রামের বাসিন্দাদের মধ্যে ব্যাপক আতঙ্ক ছড়িয়েছে৷ বহিরাগত বিজেপি দুষ্কৃতীরা এই হামলা চালিয়েছে বলে দাবি তৃণমূলের৷ তবে সূত্রের খবর এই হামলার পিছনে রয়েছে তৃণমূলের গোষ্ঠী সংঘর্ষ৷

আরও পড়ুন: ফের গ্রেফতার কুখ্যাত দুস্কৃতি হাতকাটা দীলিপ

- Advertisement -

 

২০১২ সালের জুন মাসে কাঁকরতলার তৃণমূল অঞ্চল প্রধান শেখ আজফার ওরফে কালো বড়রা গ্রামে সাসক দলের এই কার্যালয়টি তৈরি করেন৷ এর কয়েক কিলোমিটারের মধ্যেই রয়েছে শাসক দলেরই কালোর বিরুদ্ধ গোষ্ঠীর নেতা বলে পরিচিত দীপক ঘোষের পার্টি অফিস৷ দীপক খয়রাশোল ব্লকের তৃণমূল সভাপতি৷ একই দলের হলেও দীপক ও কালোর মধ্যে ঠাণ্ডা লড়াইয়ের কথা কারোর অজানা নয়৷ সামনেই বড়রা গ্রাম পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠন। পঞ্চায়েত কার দখলে থাকবে তা নিয়ে এই দুই গোষ্ঠীর লড়াই চলছিল৷ যার জেরেই এই ঘটনা বলে মনে করা হচ্ছে৷

তবে বিষ্ফোরণ ঘিরে শাসক বিরোধী তরজায় সরগরম লাল মাটির দেশ৷ বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের দাবি, ‘‘ঝাড়খণ্ড থেকে দুষ্কৃতীদের এনে এই হামলা চালাচ্ছে বিজেপি৷’’ গোষ্ঠাদ্বন্দ্বের অভিযোগ উড়িয়ে অনুব্রত বলেন, ‘‘নিজেদের পিঠ বাঁচাতেই বিরোধীরা গোষ্ঠা দ্বন্দ্বের গল্প সাজাচ্ছে৷’’ বিরোধীদের কথায়, বোর্ড গঠনে অশান্তি এড়াতেই পার্টি অফিসে বোমা মজুত রেখেছিল তৃণমূল৷ তা ফেটে যাওয়াতেই বিরোধীদের দিকে আঙুল তুলছে তৃণমূল কংগ্রেস৷

আরও পড়ুন: বামদের মিছিলে স্লোগান উঠল ‘মোদীর বড় সমর্থক মমতা’

কাঁকরতলার বড়রা গ্রামের তৃণমূল দলীয় দফতর ঘিরে রেখেছে পুলিশ৷ মোতায়েন রয়েছে কমব্যাট ফোর্স৷ কোথা থেকে পার্টি অফিসের মধ্যে বোমা এল, কি কারণে বিষ্ফোরণ তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ৷ ঘটনাস্থলে রয়েছেন ডিএসপি হেডকোয়ার্টার৷

Advertisement ---
---
-----