বোর্ড গঠন স্থগিত আমডাঙ্গার তিন পঞ্চায়েতে

স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠন ঘিরে মঙ্গলবার রাতে রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে উত্তর ২৪ পরগনার আমডাঙা৷ তৃণমূল সিপিএম সংঘর্ষে মৃত্যু হয় তিন জনের৷ আশঙ্কাজনক ৬ জন৷ বুধবার সকাল থেকেই থমথমে গোটা আমডাঙা৷ পরিস্থিতি আবারও উত্তপ্ত হয়ে উঠতে পারে এই আশঙ্কায় আমডাঙার তারাবেড়িয়া, মরিচা এবং বোদাই গ্রাম পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠন প্রক্রিয়া স্থগিত বলে ঘোষণা করা হয় প্রশাসনের তরফে৷

কবে ফের বোর্ড গঠন হবে তা জানাতে পারেনি প্রশাসন৷ অগ্নিগর্ভ পরিস্থিতির জেরে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে আমডাঙ্গা থানার ওসি মানস দাসকে৷ ওই থানার নতুন ওসি করা হয়েছে তুষারকান্তি বিশ্বাসকে৷ অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে গোটা আমডাঙ্গা ও সংলগ্ন অঞ্চল জুড়ে মোতায়েন রয়েছে চারটি থানার পুলিশ৷

- Advertisement -

বোর্ড গঠন প্রক্রিয়ার জেরে হিংসার ঘটনায় সোমবারই ক্যাবিনেট বৈঠকে উদ্বেগ প্রকাশ করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী৷ মন্ত্রীদের নিজেদের জেলায় গিয়ে পরিস্থিতির দিকে নজর রাখার পরামর্শ দিয়েছিলেন তিনি৷ সূত্রের খবর, মঙ্গলবার আমডাঙার ঘটনার পর ফের উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন রাজ্যের প্রশাসনিক প্রধান৷

জানা গিয়েছে, মুখ্যমন্ত্রী আমডাঙার পরিস্থিতির খোঁজ খবর নেন উত্তর ২৪ পরগনা জেলা সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের কাছ থেকে। মুখ্যমন্ত্রী নির্দেশ আহতদের জন্য যেন সুচিকিৎসার বন্দোবস্ত করা হয়৷

এদিন ছিল আমডাঙা থানার অন্তর্গত তারাবেড়িয়া, মরিচা এবং বোদাই গ্রাম পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠন প্রক্রিয়া৷ ফলে এলাকায় চাপা উত্তেজনা ছিল৷ কিন্তু তার আগেই শাসক বিরোধী সংঘর্ষে আমডাঙা উত্তাল হয়৷ মঙ্গলবার রাতে বহিসগাছি অঞ্চলে বোমার লড়াই হয়৷ মুহুর্মুহু বোমা পড়তে থাকে৷ চলে গুলিও৷

বোমার ও গুলির আঘাতে মৃত্যু হয় মোট তিন জনের৷ শাসক দলের নিহত দুই কর্মী নাসির হালদার (৩৪) এবং কুদ্দুশ আলি গাইন (৩২)৷ মৃত্যু হয় মুজাফ্ফর পিয়াদাদ নামের এক সিপিএম কর্মীর৷

সংঘর্ষের দায়ে একে ওপরের ঘাড়ে ঠেলে দু’পক্ষই৷ জেলা তৃণমূল সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন, ‘‘সিপিএমের সঙ্গে কংগ্রেস এবং বিজেপি একজোট হয়ে তৃণমূল কর্মীদের উপর হামলা চালিয়েছে । মধ্যরাত পর্যন্ত পুলিশ ওই গ্রামে ঢুকতে পারেনি । ভিনরাজ্য থেকে অস্ত্রভান্ডার এনে আমডাঙ্গাকে অশান্ত করেছে বিরোধীরা।’’ তাঁর অভিযোগ অশান্তির পরও গ্রামে পুলিশ ঢুকতে দেয়নি বিরোধীরা৷

বিরোধীদের দাবি, তৃণমূলের হিংসার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর জেরেই শাসক দলের এই পরিকল্পিত হামলা৷ ঘটনার পর এলাকা থেকে উদ্ধার প্রচুর তাজা বোমা৷ বুধবার সকালেও বহিসগাছি গ্রাম থেকে উদ্ধার হয়েছে বেশ কয়েকটি বোমা৷
পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আমডাঙা জুড়েই মোতায়েন রয়েছে বিশাল পুলিশ বাহিনী৷

Advertisement ---
---
-----