বোয়িং-এর সঙ্গে হাত মিলিয়ে দেশেই তৈরি হবে ‘অ্যাপাচি’-‘চিনুক’ কপ্টার

নয়াদিল্লিঃ  দেশীয় অ্যাপাচি এ এইচ ৬৪ই মাল্টি রোল হেলিকপ্টার তৈরির কাজ শুরু হতে চলেছে৷ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বোয়িং কম্পানি তৈরি করতে চলেছে হেলিকপ্টারের কাঠামো৷ আগামি বছরের শুরুতেই এই কাজ শুরু হয়ে যাবে বলে সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে৷

২০১৫ সালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে এক সামরিক চুক্তিতে, বোয়িং নির্মিত ২২টি ‘অ্যাপাচি’ অ্যাটাক হেলিকপ্টার এবং ১৫টি ‘চিনহুক’ হেভি লিফট হেলিকপ্টার কেনার ক্ষেত্রে চূড়ান্ত ছাড়পত্র পায় ভারত৷ ২০১৩ সাল থেকে এই চুক্তির কাজ আটকে ছিল৷ মূল চুক্তির পরিমাণ প্রায় আড়াই বিলিয়ন মার্কিন ডলার বা ১৬ হাজার কোটি টাকা৷ অত্যাধুনিক অ্যাপাচি হেলিকপ্টারগুলির জন্য দুটি পৃথক চুক্তি করতে হয় ভারতকে। একটি কপ্টার-নির্মাণকারী সংস্থা বোয়িং-এর সঙ্গে। আবার কপ্টারে বিভিন্ন অত্যাধুনিক রাডার ও সামরাস্ত্রের জন্য দ্বিতীয় চুক্তিটি করতে হয় মার্কিন প্রশাসনের সঙ্গে।

এই অ্যাপাচি নির্মাণের কাজ শুরু হতে চলেছে৷ ২২টি অ্যাপাচি ছাড়াও আরও ১৬ টি অতিরিক্ত এ এইচ ৬৪ই মাল্টি রোল হেলিকপ্টারের বরাত দিয়েছে ভারত৷ এরজন্য খরচ হবে প্রায় ৪,১৬৮ কোটি টাকা৷

- Advertisement -

হায়দরাবাদে টাটা অ্যাডভান্সড সিস্টেমে হেলিকপ্টারগুলির কাঠামো প্রস্তুত করা হবে৷ তারপর চূড়ান্ত প্রস্তুতির জন্য নিয়ে যাওয়া হবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে৷ ২০১৯ সালে ভারতীয় সেনার হাতে এই হেলিকপ্টার তুলে দেওয়া হবে৷ বোয়িং কোম্পানির ভারতীয় প্রতিনিধি প্রত্যুষ কুমার জানিয়েছেন নির্ধারিত সময়ের আগেই কাজ শুরু হয়ে যাবে৷ প্রস্তুতি পর্ব নিয়ে যথেষ্ট আশাবাদী তিনি৷

সমীক্ষা বলছে প্রতিরক্ষা খাতে ব্যয় বরাদ্দের দিক থেকে বিশ্বে পঞ্চম স্থানে রয়েছে ভারত৷ ২০১৬ সালে ভারতে এই খাতে বরাদ্দ ছিল ৫৫.৯ বিলিয়ন৷
এ এইচ ৬৪ই অ্যাপাচি গ্রুপের মধ্যে সর্বাধুনিক অ্যাটাকিং হেলিকপ্টার। এটি চার ব্লেডের অ্যাটাকিং কপ্টার। লক্ষ্যে আঘাত হানতে এই হেলিকপ্টারে রয়েছে নোজ-মাউন্টে়ড সেন্সর স্যুট এবং নাইট ভিশন সিস্টেম। এ ছাড়া রয়েছে ৩০ এমএম এম ২৩০ চেন গান। গতিবেগ ঘণ্টায় ৩০০ কিলোমিটার।

Advertisement ---
-----