FirstBreak- পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের গাড়ির ওপর হামলা বিজেপি কর্মী সমর্থকদের

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: কাঁথিকাণ্ডের প্রতিবাদে বিজেপির প্রতিবাদ মিছিল বের হয় সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউতে৷ সেই মিছিলে ছিলেন মুকুল রায় থেকে লকেট চট্টোপাধ্যায়ের মতো বিজেপি নেতা-নেত্রীরা৷ সেসময়ই মিছিলের মুখোমুখি হয় শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের গাড়ি৷ গাড়ির সামনেই বসেছিলেন শিক্ষামন্ত্রী৷ তার গাড়ি সামনে আসা মাত্রই বিজেপি কর্মী সমর্থকেরা গাড়িকে লক্ষ্য করে চাপড় মারতে থাকে৷

সূত্রের খবর, এই মিছিলে প্রায় চার থেকে পাঁচশো বিজেপি কর্মী সমর্থকেরা ছিল, যারা পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের দিকে কালো কাপড়ও দেখায় বলে জানা যায়৷

পাশাপাশি, বিজেপির ওই মিছিল থেকে পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং মুক্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে উদ্দেশ্য করে স্লোগানও দেওয়া হতে থাকে৷ ‘পার্থ চোর, পার্থ পালাচ্ছে’ বলে মাইক্রোফোনে বলতে থাকে বিক্ষোভ প্রদর্শনকারীরা৷

ঘটনাকে কেন্দ্র করে পরিস্থিতি ক্রমসই উত্তপ্ত হতে শুরু করে৷ কলকাতা পুলিশ শিক্ষামন্ত্রীর গাড়িকে অন্য রাস্তা দিয়ে বের করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে৷

প্রসঙ্গত, অমিত শাহের জনসভা শেষ হওয়ায় পরই ভাঙচুর চলে দলীয় সমর্থকদের বাসে। সভায় আসা জেলার বিভিন্ন প্রান্তের গাড়িগুলি ১১৬ বি জাতীয় সড়কের পাশে রাখাছিল। সভা চলাকালীন সভায় আসা ৫০/৬০ টি বাস ও ট্রেকার ভাঙচুর চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ ওঠে। এরপরেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে গোটা এলাকা।

পালটা তৃণমূল কার্যালয় ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে বিজেপির বিরুদ্ধে। দুপক্ষের সংঘর্ষে মুহূর্তের মধ্যে রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় কাঁথি। দুপক্ষের ব্যাপক সংঘর্ষে এখনও পর্যন্ত মোট ২০জন আহত হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। গুরুতর আহত হয়েছেন কর্তব্যরত পুলিশ কর্মীরাও। আহত তৃণমূল এবং বিজেপির একাধিক কর্মী-সমর্থক।

এই ঘটনার প্রতিবাদেই বুধবার কলকাতা বিক্ষোভ মিছিল বের করে বিজেপি৷ আর সেখানেই পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের গাড়ি সামনে আসার পরই ফের পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়ে ওঠে৷

---- -----