ফাইল ছবি

শ্রীনগর: শহিদ বিএসএফ-এর হেড কনস্টেবলের দেহ সোনিপাতে নিয়ে এলেন সেনা জওয়ানরা৷ জওয়ানকে গুলি করে, তার দেহ ক্ষতবিক্ষত করে, মাথা দেহ থেকে আলাদা করার প্রচেষ্টায় ফের একবার পাকিস্তান তার নৃশংস, বর্বরোচিত মনোভাবের পরিচয় দিয়েছে, আর এই সমগ্র ঘটনার কড়া বিরোধিতায় নেমেছে বিএসএফ৷ পাক রেঞ্জার্সের এই পদক্ষেপকে “unsoldierly” বলেছেন জওয়ানরা৷

তাঁরা জানিয়েছেন,সীমান্ত এলাকা সর্বদাই উত্তপ্ত থাকে৷ ইন্দো-পাক সীমান্তে অনেক স্থানেই হাই অ্যালার্টও জারি থাকে৷ মঙ্গলবারে পাক সংঘর্ষ বিরতি চুক্তি লঙ্ঘনে নরেন্দ্র সিং নামে বিএসএফ-এর হেড কনস্টেবল শহিদ হন৷ জম্মু-কাশ্মীরের সাম্বা সেক্টরের ঘটনা৷ ১৮ অগস্ট, ইন্দো-পাক সীমান্তে ওই বিএসএফ জওয়ানের ক্ষতবিক্ষত দেহ উদ্ধার হয়৷ গত কয়েকদিন ধরেই নিখোঁজ ছিলেন ওই জওয়ান৷

Advertisement

পড়ুন:  কেরল ধর্ষণকাণ্ড: বিশপকে সরিয়ে দিল ভ্যাটিকান

এদিকে পাকিস্তানের পক্ষ থেকে সমগ্র ঘটনাতে তাদের হাত থাকার বিষয়টি অস্বীকার করা হয়েছে৷ তবে পাক রেঞ্জার্সের এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করে বিরোধিতার পথে নেমেছে বিএসএফ৷ গত তিনমাসে এই নিয়ে দুবার প্রতিবাদে নেমেছে জওয়ানরা৷ পাশাপাশি নজরদারি আরও কড়া করা হয়েছে সীমান্ত এলাকায়৷ কিছু স্থানে হাই অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে৷

প্রসঙ্গত, একাধিক সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবর থেকে জানা গিয়েছে, এই নৃশংস ঘটনা ঘটার ঠিক একদিন আগে দেশে সীমান্তের কাছে একটি পাক হেলিকপ্টার দেখতে পেয়েছিল বিএসএফ৷ সেই হেলিকপ্টারটি কিছুক্ষণ ঘোরাঘুরির পরে চলে যায় বলে জানা যায়৷ আর তার পরের দিনই পাক রেঞ্জার্সের বর্বরোচিত কাজটি প্রকাশ্যে আসে৷

এদিকে বৃহস্পতিবারপুলওয়ামার পুলিস স্টেশনে জঙ্গিদের গ্রেনেড হামলার কথা জানা যায়৷ রাজপোরার পুলিশ স্টেশনকে লক্ষ্য করে এই হামলা জঙ্গিরা চালালেও কোনও হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি৷

----
--