নয়াদিল্লি: রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিকম সংস্থা কর্মীরা ফেব্রুয়ারি মাসের বেতন পাননি৷ তা নিয়ে ইতিমধ্যে সোরগোল শুরু হয়েছে৷ চাপে পড়েছে মোদী সরকারও৷ তবে কিছুটা আশার আলো দেখা যাচ্ছে কর্মীদের জন্য৷ কারণ সংস্থার চেয়ারম্যান অ্যান্ড ম্যানেজিং ডিরেক্টর অনুপম শ্রীবাস্তব জানিয়েছেন শুক্রবার কর্মীদের বেতন হয়ে যাবে ৷

বিএসএনএল কর্তা, টেলিকমমন্ত্রী মনোজ সিংহা ধন্যবাদ জানিয়েছেন কারণ তিনি সময় মতো হস্তক্ষেপ করায় বিএসএনএলের সব কর্মীদের বেতন শুক্রবার হয়ে যাবে৷তিনি জানিয়েছেন মার্চ মাসে সাধারণত বেশি অর্থ পাওয়া যায়৷ আশা করছেন এই মাসে ২৭০০কোটি টাকা ঢুকবে যারমধ্যে বেতন দিতে খরচ হবে ৮৫০ কোটি৷ তিনি দাবি করেছেন, রিলায়েন্স জিও ছাড়া বিএসএন হল একমাত্র টেলিকম সংস্থা যার নতু গ্রাহক জমা হচ্ছে এবং যাতে আয়ের পরিমাণ বাড়বে৷

প্রসঙ্গত, রাষ্ট্রায়ত্ত বিএসএনএল-এর ১.৭৬ লক্ষ কর্মীর ফেব্রুয়ারি মাসের বেতন আটকে যায় যা এই সংস্থার কর্মীদের এমন ভাবে প্রথম বেতন আটকে যাওয়া৷ তখন কর্মী ইউনিয়নরে পক্ষ থেকে টেলিকম মন্ত্রী মনোজ সিংহের কাছে আর্জি জানিয়েছে সরকার যেন অর্থের ব্যবস্থা করে কর্মীদের বেতন দেওয়ার জন্য এবং সংস্থাটি চাঙ্গা করার জন্য৷ পাশাপাশি কর্মীরা এ ইস্যুতে বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভও জানায়৷

বিএসএনএলের আয়ের ৫৫ শতাংশ চলে যায় কর্মীদের বেতন দিতে এবং বছরে বেতন বাবদ খরচ বৃদ্ধি পায় ৮ শতাংশ যদিও আয় এক জায়গায় দাঁড়িয়ে রয়েছে ৷ গত পাঁচ বছর ধরে বিএসএনএল ক্ষতিতে চলছে ৷ বিএসএনএল কর্মী ইউনিয়ন ইতিমধ্যেই অভিযোগ তুলেছে বিএসএনএলকে হাতিয়ার করে ফায়দা লুঠছে বেসরকারি টেলিকম সংস্থাগুলি অন্যদিকে বিএসএনএলকে চক্রান্ত করে রুগ্ন করে তোলা হচ্ছে ৷