শুক্রবারেই মিটে যাবে নগদ সমস্যা: SBI

ফাইল ছবি

নয়াদিল্লি: ‘ক্যাশ ক্রাঞ্চ’, এই দুটো শব্দ ঘুম কেড়েছে সবার। এটিএমে টাকা নেই। এটা ভেবেই কূল-কিনারা খুঁজে পাচ্ছেন না দেশের মানুষ। এর মধ্যে আশার কথা শোনালেন স্টেট ব্যাংক অফ ইন্ডিয়ার চেয়ারম্যান রজনীশ কুমার। তিনি জানালেন, যেসব রাজ্যে নোটের অভাব রয়েছে, সেখানে টাকা পাঠানো হয়েছে। আগামিকাল অর্থাৎ শুক্রবারের মধ্যেই সব সমস্যার সমাধান হবে।

এদিকে, অর্থ মন্ত্রকের এক অফিসার জানিয়েছেন, নোট সমস্যা মেটাতে উদয়াস্ত কাজ চলছে। ১৮ ঘণ্টার বদলে ২৪ ঘণ্টা ছাপানো হচ্ছে নোট।

আগে, স্টেট ব্যাংক আগেই জানিয়েছে যে এটিএমে পর্যাপ্ত টাকা নেই। অন্তত ৭০,০০০ কোটি টাকার অভাব রয়েছে, যা এক মাসের মোট চাহিদার এক তৃতীয়াংশ। তাই বিভিন্ন জায়গায় সেই অভাব মেটাতে ইতিমধ্যেই টাকা পাঠানোর প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

- Advertisement -

এর আগেই অবশ্য অর্থমন্ত্রকের তরফ থেকেই জানানো হয়েছিল যে, বাজারে ৫০০ টাকার নোটের সংখ্যা বাড়িয়ে সমস্যা সমাধান করা হবে। ২-৩ দিনের মধ্যেই সমস্যা মিটে যাবে বলে জানানো হয়েছিল।

উল্লেখ্য, দেশের অন্তত ১০ রাজ্যে এটিএম-এ নোটের হাহাকার শুরু হয়ে গিয়েছে। বিহার, মধ্যপ্রদেশ, উত্তরপ্রদেশ, দিল্লি, রাজস্থান, গুজরাট সহ একাধিক রাজ্যে এটিএমের সামনে বিরাট লাইন পড়ে ‌যায়। বহু জায়গায় এটিএম-এ নো ক্যাশ বোর্ড ঝুলিয়ে দেওয়া হয়। এরপরই অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি বলেন, নোটের এই সংকট সাময়িক। দেশের কয়েকটি রাজ্যে হঠাৎ টাকার জোগান বেড়ে ‌যাওয়ায় অন্যান্য রাজগুলিতে তার প্রভাব পড়েছে। ২-৩ দিনের মধ্যে সমস্যার সমাধান হয়ে ‌যাবে।

মঙ্গলবার অর্থ মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, বর্তমানে রোজ ‌যে পরিমাণ ৫০০ টাকার নোট ছাপানো হচ্ছে তার থেকে ৫ গুণ বেশি নোট ছাপা হবে। অর্থমন্ত্রকের সচিব, এ সি গর্গ সংবাদমাধ্যমকে জানান, ‘আগামী ২ দিনের মধ্যে রোজ ২৫০০ কোটি ৫০০ টাকার নোট ছাপানো হবে।’

সচিব সুভাষ চন্দ্র গর্গ আরও জানান, বর্তমানে ১৮ লক্ষ কোটি টাকার নগদ চালু রয়েছে। এর পাশাপাশি, আড়াই থেকে তিন লক্ষ কোটি টাকার রিজার্ভ মজুত রয়েছে। যে কোনও নগদ সঙ্কট পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে কেন্দ্র প্রস্তুত। তিনি স্বীকার করেন, দেশের কয়েকটি জায়গায় নগদের চাহিদা অন্য প্রান্তের তুলনায় বেশি থাকে। ফলে, সেখানে মানুষকে দীর্ঘ লাইন দিতে হচ্ছে।

Advertisement ---
---
-----