নির্বাচনের আগে ৪০০ শতাংশ ‘অ্যাটাক’ বাড়িয়েছে পাকিস্তান

ফাইল ছবি

নয়াদিল্লি: রমজান মাসে শান্তির বার্তা দিয়েছিল কেন্দ্র। দুই দেশের ডিজিএমও-র মধ্যে হয়েছিল শান্তি চুক্তি। কিন্তু এসব সত্বেও মুহর্মূহ গুলি চালাচ্ছে পাকিস্তান। গত বচরের তুলনায় যা কয়েকগুন বেশি। গত বছর যেখানে ১১ বার সংঘর্ষ বিরতি লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটেছিল, সেখানে পাকিস্তান এবছর এখনও পর্যন্ত ৪৮০ বার চুক্তি ভেঙে হামলা চালিয়েছে। অর্থাৎ সংঘর্ষ বিরতি লঙ্ঘনের ঘটনা বেড়েছে ৪০০ শতাংশ।

পাকিস্তানের আসন্ন সাধারণ নির্বাচনের জন্যই এই ধরনের কার্যকলাপ চলছে বলে রিপোর্টে জানাচ্ছেন গোয়েন্দারা।

বিএসএফ সূত্রে খবর, গত বছর চলতি সময় পর্যন্ত সীমান্তে ১১১ বার সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন করেছিল পাক রেঞ্জার্স। এবছর দিনে প্রায় গড়ে তিনবার করে হামলা চালিয়েছে পাক রেঞ্জার্স। ২৫ জুলাই সাধারণ নির্বাচন হতে চলেছে পাকিস্তানে। বিশেষজ্ঞদের অনেকেই আশঙ্কা প্রকাশ করছেন, সেই নির্বাচনের আগে পর্যন্ত সীমান্তকে উত্তপ্ত রাখবে পাকিস্তান ও আইএসআই।

- Advertisement -

গোয়েন্দাদের কাছে এমন খবরও রয়েছে যে, কাশ্মীরে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের হাতেও বিপুল পরিমাণ অর্থ ও অস্ত্র পৌঁছে দিয়েছে আইএসআই। ভারতীয় সেনাকে লক্ষ্য করে পাথর ছোঁড়ার বাড়তি সাহায্য জুগিয়েছে বিচ্ছিন্নতাবাদীরা।

সেনা সূত্রে খবর, ভারতের জঙ্গিদমন অভিযান বন্ধ রাখার সিদ্ধান্তকে সম্পূর্ণ ভাবে কাজে লাগাতে চেয়েছিল পাক গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই।

ঔরঙ্গজেবের হত্যার ঘটনাতেও আইএসআইএর হাত আছে বলেই মনে করছে ভারতীয় গোয়েন্দারা। ইতিমধ্যে গত কয়েকদিনে উপত্যকায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন অসংখ্য সাধারণ মানুষ। হত্যা করা হয়েছে জওয়ান ঔরঙ্গজেব ও সাংবাদিক সুজাত বুখারিকেও।

Advertisement ---
---
-----