ফুটবল উত্তেজনায় ফুটছে সিনেপাড়া

কেউ অন্ধভক্ত মেসির। কেউ ফ্যান নেইমারের। ব্যাস্ত শিডিউলে ফাঁকে কেউ দেখবেন ব্রাজিলের ম্যাচ। কিংবা ক্যালেন্ডারে মার্ক করে রেখেছেন আর্জেন্টিনার খেলার দিনগুলি। সব মিলিয়ে মাঠ ছাড়িয়ে ফুটবল উত্তেজনায় ফুটছে সিনেপাড়া। পক্ষ-বিপক্ষের লড়াইয়ে জেনে নিন আপনার প্রিয় তারকারা কোনও দলকে সমর্থন করছে।

প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায় : আজ থেকে শুরু দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ। ফুটবল ওয়ার্ল্ড কাপ। এবারে রাশিয়া। অন্যান্য বাঙালীর মতোন আমি বরাবরই ফুটবলের সাথে নিজেকে খুব সম্পৃক্ত রাখি। কারণ অন্যান্য সমস্ত খেলার মধ্যে এইটিই আমার সবচেয়ে প্রিয়। ভারতীয় ফুটবল মানচিত্রে কলকাতা এক অন্যতম নাম। সারাদিন কাজকম্মো থেকে বাড়ি ফিরবার পথে রোজই পথে দেখি ইতিউতি ব্রাজিল, জার্মানি, আর্জেন্টিনা,স্পেন এর পতাকা আকায়াএ উড়ছে। এই উন্মাদনাটি আমাদের মধ্যে একই থেকে গেছে। আগামী কদিন তাই পাড়ার প্রতিটা মোড়ে, প্রতিটা চায়ের দোকানে, প্রতিটি ট্রেন বাসে লোকজনের মুখে একটা বিষয়ই ঘুরে বেড়াবে। বিশ্বকাপ ফুটবল। এবং তার গতিবিধি। সক্কলে ফুটবল দেখুন। খুব আনন্দ করুন একে অন্যের সাথে। ঢেউ উঠুক প্রতিটি মানুষের মনে।

- Advertisement -

যশ দাসগুপ্ত : একজন ফুটবল প্রেমী হিসেবে আজ আমি খুবই একস্টাইটেড৷ শুধু আজকের দিনটা নয়, ফিফা বিশ্বকাপের উৎসাহ আগে থেকেই কয়েকদিন আগে থেকেই শুরু হয়ে যায়৷ যদিও মাঠে আজ আমার প্রিয় দল, ব্রাজিলের খেলা দেখা যাবে না৷ তবুও আজ ওয়ার্ল্ড কাপের প্রথম দিনটা দেখার চেষ্টা করব৷ প্রতিবারের মতো এবারও মনে প্রাণে চাইব ব্রাজিলই জিতুক৷ তবে বাড়িতে বসে একা একা ফুটবল দেখা একেবারেই আমার পছন্দ নয়৷ তাই এবারও প্ল্যান রয়েছে বন্ধু বান্ধবরা মিলে জড়ো হয়ে একসঙ্গেম্যাচ দেখব৷ আসলে ফুটবল বিশ্বকাপ মানে, বহু রাত জেগে খেলার দেখার স্মৃতি৷ য়খানে আমরা বন্ধু বান্ধবরা মিলে, দু’দলে ভাগ হয়ে যেতাম৷ কেউ কেউ আমার মতো ব্রাজিলের সাপোর্টার, কেউ কেউ আর্জেনটিনার সাপোর্টার৷ ফলে বাড়িতেই একটা মাঠের বসার ফিলিং পাই৷ আর ম্যাচ দেখার সঙ্গে গরমাগরম কাবাব৷ পুরো ব্যাপারটাই জমজমাটি৷

বিক্রম চট্টোপাধ্যায় : আমি বরাবরই আর্জেন্টিনার সমর্থক৷ আর্জেনটিনার কোনও খেলাই আমি মিস করতে চাই না৷ যদিও এখন শ্যুটিংয়ের খুব চাপ রয়েছে, তাই বলে ফুটবল বিশ্বকাপ মিস করার কোনও প্রশ্নই নেই৷ তাই চেষ্টায় আছি, যখন আর্জেন্টিনা ম্যাচ খেলবে, সেদিন গুলি শ্যুটিং থেকে তাড়াতাড়ি বাড়ি ফিরব৷ ছোটবেলায় আমার পছন্দের ফুটবলার ছিলেন মারাদোনা৷ আর এখন মেসি৷ বাড়িতে বন্ধুদের সঙ্গে বসে ফুটবল দেখাটা বেশি এনজয় করি৷ যখন আর্জেন্টিনা গোল করে সেই মুহূর্তে আমার উত্তেজনা দশগুণ বেড়ে যায়৷ তবে আর্জেন্টিনা ছাড়া আমি ব্রাজিলের খেলা দেখতেও পছন্দ করি৷

মিমি চক্রবর্তী : আমি মেসি ভক্ত৷ এটা মেসির লাস্ট ওয়ার্ল্ড কাপ৷ তাই এবার মেসির হাতে ফুটবল বিশ্বকাপ দেখতে চাই৷ বিশ্বকাপ সূচী দেখে আমি আর্জেন্টিনার ম্যাচের দিনগুলি মার্ক করে রেখেছি৷ আসলে শ্যুটিং থাকলেও ওয়ার্ল্ড কাপ মিস করা যায় না৷ তাই সব ম্যাচেই কমবেশি চোখ রাখব৷ কিন্তু আর্জেন্টিনার একটি ম্যাচও মিস করতে চাই না৷

সুদীপা চট্টোপাধ্যায় : আমি ভীষণরকম ক্রীড়াপ্রেমী৷ তাই এবার বিশ্বকাপ ফুটবলে সব ম্যাচই দেখার চেষ্টা করব৷ তবে আমার ফেভারিট দল আর্জেন্টিনা৷ আমি এতটাই এই দলের অন্ধভক্ত যে অনেক সময় ওদের জার্সি পরে ম্যাচ দেখতে বসি৷ গোল দিলে হইহই করে মজা করি৷

Advertisement ---
---
-----