চন্দ্রহগ্রহণ চলাকালীন ভুলেও এই কাজটি করবেন না!

এই শতাব্দীর দীর্ঘতম চন্দ্রগ্রহণ দেখবে বিশ্ববাসী। শুক্রবার টানা দু’ঘন্টা ধরে এই চন্দ্রগ্রহণ দেখতে পাওয়া যাবে। ওই দিন সম্পূর্ণ লাল রঙের চাঁদের দেখা মিলবে। কিছুদিন আগেই সূর্যগ্রহণ হয়েছিল। কিন্তু সেই দৃশ্য দেখা যায়নি ভারতে। তবে এবারে সেই সম্ভাবনা রয়েছে।

হিন্দুরা অবশ্য গ্রহণের সময় বেশ কিছু নিয়ম নীতি মেনে চলেন৷ যেমন গ্রহণের সময় রান্না করেন না৷ গর্ভবতী মহিলাদের অনেক বিধিনিষেধ মেনে চলতে হয়৷ অনেকে এই সব নিয়ম নীতিকে কুসংস্কার বলে মনে করেন৷ তাদের মতে গ্রহণের সঙ্গে এই সবের সম্পর্ক কি? অনেকে এই সবের পিছনে বৈজ্ঞানিক যুক্তি খুঁজে পান৷ তবুও বিশ্বাসে মিলায়ে বস্তু তর্কে বহুদুর৷

সাধারণত হিন্দুরা গ্রহণের সময় যে যে কাজ করতে নিষেধ করেন-
১. গ্রহণের দিন সন্ধের পরে শরীরে তেল মালিশ করলে ত্বকের সমস্যা দেখা দিতে পারে।

২. স্বামী-স্ত্রীকে সংযম রাখতে হবে। শাস্ত্র মতে, গ্রহণের সময়ে মিলনের যে সন্তান গর্ভে আসবে, তার স্বভাব, চরিত্র ভাল হয় না।

৩. গ্রহণের সময়ে গর্ভবতী মহিলাদের বাইরে বেরনো উচিত নয়। কারণ, গ্রহণের সময় পরিবেশে ক্ষতিকারক তরঙ্গ সক্রিয় থাকে। এর ফলে গর্ভস্থ সন্তানের ক্ষতি হতে পারে।

৪. গ্রহণের আগে রান্না করা খাবার গ্রহণের পরে খাওয়া উচিত নয়। খাবার রান্না করা থাকলে গ্রহণের সময়ে তাতে তুলসি পাতা ছড়িয়ে দিন। তাহলে গ্রহণের ক্ষতিকারক প্রভাব খাবারে পড়বে না।

৫. সুস্থ মানুষদের সন্ধের পরে ঘুমনো উচিত নয়। এর ফলে শরীর অসুস্থ হতে পারে। গর্ভবতী, বৃদ্ধ এবং অসুস্থরা অবশ্য এই সময়ে বিশ্রাম নিতে পারেন বা শুয়ে থাকতে পারেন।

৬. গ্রহণের সময় জল খেতে নেই৷

৭. গর্ভবতী মহিলাদের বাড়ির বাড়ির বাইরে বেরনো উচিত নয়৷

৮. গ্রহণ শেষ হবার পর স্নান করা দরকার৷

----
-----