স্টাফ রিপোর্টার, বারাকপুর: সপ্তাহের প্রথম দিনেই কারখানার গেটে তালা৷ আর তা দেখেই কার্যত আকাশ ভেঙে পড়ল কর্মীদের মাথায়৷ জানা গিয়েছে, অনির্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ টিটাগড় ডেডিকো ভেপার উদ্যোগ প্রাইভেট লিমিটেড জুটমিল৷

যার জেরে রাতারাতি কর্মহীন হয়ে পড়েন প্রায় তিন হাজার শ্রমিক৷ শ্রমিকদের অভিযোগ, সোমবার সকালে কারখানায় সাসপেনশন অফ ওয়ার্কের নোটিশ ঝুলিয়ে দেয় কর্তৃপক্ষ।

আরও পড়ুন: চলুন আলাপ করা যাক, প্রিয়াঙ্কার ‘মিড-নাইট ক্রাশ’ এর সঙ্গে

প্রসঙ্গত, রবিবার ছুটির পর সোমবার নিয়ম মতোই শ্রমিকরা কাজে আসেন৷ কিন্তু কারখানায় এসে তারা দেখতে পান কারখানার মূল গেটে কাজ বন্ধের নোটিশ ঝুলছে৷ এদিকে হঠাৎ করে কর্তৃপক্ষ জুট মিলে কাজ বন্ধের নোটিশ জারি করায় কর্মহীন হয়ে পড়েন কারখানার স্থায়ী ও অস্থায়ী মিলিয়ে প্রায় তিন হাজার শ্রমিক৷

শ্রমিকরা জানিয়েছেন, ওই নোটিশে জুট মিল বন্ধের কারণ হিসাবে মিলের উৎপাদন কম, কাজে শ্রমিকদের সময় মতো না আসা, কারখানায় কাজের পরিবেশ না থাকা এই বিষয়গুলিকে দেখানো হয়েছে। এই প্রসঙ্গে যদিও শ্রমিকদের বক্তব্য, কারখানায় পিএফ পদ্ধতি অনলাইন করা হবে আগেই বলা হয়েছিল৷

আরও পড়ুন: বিমান-সূর্যকে বেরিয়ে যেতে বললেন সোমনাথ পুত্র

আর সেই বিষয় নিয়েই কিছুদিন ধরে কারখানার মধ্যে একটা সমস্যা তৈরি হয়৷ কারণ শ্রমিকদের অভিযোগ, কর্তৃপক্ষ দীর্ঘদিন ঠিক মত পিএফের হিসাব দেয়নি। সেই সঙ্গে শ্রমিকরা ঠিক মত ইএসআইয়ের সুবিধাও পেত না।

এসবের পরেও জুট মিলে শ্রমিকরা ঠিক মতই উৎপাদন দিয়ে যাচ্ছিল৷ পাশাপাশি কারখানায় কাজের পরিবেশ না থাকার যে অভিযোগ কর্তৃপক্ষ নোটিশে উল্লেখ করেছে তা একেবারেই অসত্য। মিল কর্তৃপক্ষের এই মিল চালানোর কোনও ইচ্ছে নেই বলে জুট মিল বন্ধ করা হয়েছে বলে অভিযোগ শ্রমিকদের।

আরও পড়ুন: লজ্জার হারে সিংহাসনচ্যুত বিরাট

অন্যদিকে, কারখানার ভিতরে সংবাদমাধ্যমকে ঢুকতে না দেওয়ায় জুট মিল বন্ধ প্রসঙ্গে মিল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়নি৷ তাই এই বিষয়ে তাদের কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

অন্যদিকে, শ্রমিক ও মালিক বিরোধের জেরে সোমবার টিটাগড়ে বন্ধ হল আরও একটি জুটমিল। এবার কারখানায় উৎপাদন বন্ধ করে দিল খোদ কারখানার কর্মরত শ্রমিকরা। বারাকপুর শিল্পাঞ্চলের টিটাগড়ে বন্ধ জুট মিলের তালিকায় যুক্ত হল টিটাগড় কেলভিন জুট মিলের নাম।

আরও পড়ুন: জানেন, জাপানের এই শহর দেবী লক্ষ্মীর নামে

প্রসঙ্গত, কর্তৃপক্ষের শ্রমিক শোষণের বিরুদ্ধে সরব হয়ে কেলভিন জুটমিলের উৎপাদন বন্ধ করে দিল কারখানার কয়েক হাজার শ্রমিক। শ্রমিকদের অভিযোগ, কর্তৃপক্ষের লোকজন সোমবার সকালে হঠাৎ-ই তাঁত বিভাগে এসে ফতোয়া জারি করে প্রতি শ্রমিকদের অতিরিক্ত উৎপাদন দিতে হবে।

কারখানা কর্তৃপক্ষ আর্থিক ভাবে ক্ষতির সম্মুখীন হওয়ায় শ্রমিকদের অতিরিক্ত উৎপাদন দিতে হবে প্রতি শিফটে, জারি হয় এই ফতোয়া। তবে কর্তৃপক্ষের এই সিদ্ধান্ত মানতে নারাজ শ্রমিকরা।

আরও পড়ুন: চিকিৎসার গাফিলতিতে শিশুমৃত্যুর অভিযোগে ডাক্তারকে মারধর

শ্রমিকদের অভিযোগ, কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ করায় ম্যানেজমেন্টের লোকজন কারখানার বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেয়। এরপরই কেলভিন জুট মিলের কর্মরত শ্রমিকরা কাজ বন্ধ করে জুট মিলের বাইরে বেরিয়ে এসে বিক্ষোভ দেখাতে থাকে৷

ফলে জুট মিল চত্ত্বরে তীব্র উত্তেজনা ছড়ায়। এদিকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছয় টিটাগড় থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী। শ্রমিক বিক্ষোভ নিয়ন্ত্রণে আনতে নামানো হয় কমব্যাট ফোর্স। পুলিশ লাঠিচার্জ করে ক্ষুব্ধ শ্রমিকদের জুট মিল চত্ত্বর থেকে সরিয়ে দেয়৷ বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে কারখানার গেটে পুলিশ পিকেট বসানো হয়েছে।

আরও পড়ুন: জঙ্গলমহলের সোনার মেয়েকে কন্যাশ্রী দিবসে আমন্ত্রণ মুখ্যমন্ত্রীর

----
--